দেশে আর কোন কন্যা শিশু না জন্মাক!

0

দিলশানা পারুল:

একজন প্রাক্তন আর্মি অফিসার তার দশ বছরের কন্যাকে ধর্ষণ করেছে। তার নাম সাহেদুল্লা চিশতী, খিলগাঁও থাকে। হসপিটালে নেয়ার পর ডাক্তার, সিনিয়র ডাক্তার এবং কাউন্সিলর সবাই বিষয়টি নিশ্চিত করে মাকে জানান যে, ‘এইবারই প্রথম এই ঘটনা হয়েছে তা না। এই শিশু মেয়েটার সাথে এর আগেও অনেকবার এটা করা হয়েছে’। মা’টা বলতে গিয়ে শুধুই কাঁদছিলো। এই ধর্ষণের সাক্ষী মেয়েটার ছোট ভাই।

এর আগে বাসার তের বছরের গৃহকর্মি মেয়েকে নিয়মিত ধর্ষণ করতো ওই ব্যক্তি, এক পর্যায়ে মেয়েটা প্রেগনেন্টও হয়। এই সব নিয়ে প্রতিবাদ করতে গেলে সেনা কর্মকর্তা তার স্ত্রীকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করতো। ভদ্রমহিলা অসংখ্যবার পুলিশে কমপ্লেইন করেছেন, ৯৯৯ এ কল করে সহযোগিতা চেয়েছেন, থানায় জিডি করেছেন। কিন্তু কোথাও কোন সহযোগিতা পাননি। ভদ্রমহিলা এই সব কারণে স্বামীকে ডিভোর্স দেন। কিন্তু বাচ্চাদের তার সাথে দেয়া হয়নি। পাচঁজন মিলে মারধর করে বাচ্চা রেখে তাকে বাসা থেকে বের করে দেয়া হয়। বাচ্চা, বাবার খালা এবং সবাই মিলে বাবার জিম্মায় রাখে। তারপর বাবা নিয়ম করে এই শিশুটিকে ধর্ষণ করে।
ছয় মাস আগে মা শিশুদের কাস্টডি পায়। সাবেক সেনা বাবা মেয়েকে স্কুলে নামিয়ে দেয়ার নাম করে জোর করে মার কাছ থেকে মেয়েকে নিয়ে গিয়ে শেষবার ধর্ষণ করে। মেয়ে শুধু বলতে পারে, ‘মা পেটে ব্যথা’। আগেও মেয়ে মাকে বলেছে, বাবা রাতে আসে, তাই পেটে ব্যথা।

ভিডিওতে দেখলাম, মা’টা বলছিলেন, তার কন্যা সন্তানের ধর্ষণের যদি বিচার না হয়, তাহলে তিনি আত্মহত্যা করবেন। চলেন এইটারেও আমরা গল্প বানাই যে, মহিলা ডিভোর্স এর শোধ নিতে মেয়েকে দিয়ে নাটক করাচ্ছে।

শুধু মায়েদের বলবো, আপনার যদি যোনী সম্বলিত কোন সন্তান জন্ম নেয়, তার যোনী রক্ষার দায়িত্ব আপনার। আর কারো না। এই রাষ্ট্র সে দায়িত্ব নেবে না, এ সমাজ সেই দায়িত্ব নেয়ার প্রশ্নই তো আসে না। বাবা, ভাই, কাকা, চাচা মেয়ের ক্ষেত্রে কাউকে বিশ্বাস করবেন না।

তার মানে কি এই সব পুরুষ খারাপ? না অবশ্যই না। কিন্তু কে যে খারাপ, আর কে যে ভালো, সেইটা বোঝার তরিকা তো আমাদের জানা নাই। তাই শুধু মনে রাখেন, সাবধানের মার নাই। আপনি নিজে সাবধান থাকেন, সতর্ক থাকেন। শকুনের মতো হোন। আপনার কন্যার আপনি ছাড়া এই দুনিয়ায় কেউ নাই, শুধু এইটা মনে রাখেন। যার যোনী আছে, তার শুধু মা আছে। বাংলাদেশ আর তাবৎ দুনিয়ায় মা ছাড়া কন্যা শিশুর আর কেউ নাই।

মায়েরা সাবধান হোন। শিক্ষিত মায়েরা অশিক্ষিত মায়েদের সাবধান কীভাবে হতে হয়, কেন হতে হবে, সেই তরিকা শেখান। স্বয়ং ঈশ্বর মাটিতে নেমে আসলেও বাংলাদেশের দোযখ থেকে যোনী সম্বলিত মানুষগুলো মুক্তি পাবে কিনা আমি জানি না! এই দেশে আর কোন কন্যা শিশু না জন্মাক!

শেয়ার করুন:
  • 3.6K
  •  
  •  
  •  
  •  
    3.6K
    Shares

লেখাটি ১১,২০৭ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.