নিউইয়র্ক টাইমস এর সম্পাদক বরখাস্ত

La Monde
নাতালি
NY Times Editor
জিল আব্রামসন

উইমেন চ্যাপ্টার: একইদিনে দু’দুজন নারী সম্পাদককে বিদায় নিতে হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে কোন কারণ ছাড়াই বরখাস্ত করা হয়েছে দ্য নিউইয়র্ক টাইমসের প্রথম নারী নির্বাহী সম্পাদক জিল আব্রামসনকে। একই দিন সকালের দিকে ফ্রান্সের বিখ্যাত ম্যাগাজিন ‘লাঁ মঁদে’ থেকে পদত্যাগ করেছেন প্রথম নারী সম্পাদক নাতালি নোউগেরে।

নিউইয়র্ক টাইমস এর ১৬২ বছরের ইতিহাসে প্রথম নারী সম্পাদক ছিলেন মিস আব্রামসন। পত্রিকাটির নতুন সম্পাদক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন পত্রিকাটির ব্যবস্থাপনা সম্পাদক জিন ব্যাকুয়েট। তিনি দ্য নিউইয়র্ক টাইমসের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ সম্পাদক। 

টাইমসের সদর দপ্তরে বুধবার পত্রিকাটির প্রকাশক আর্থার সালজবার্গার কর্মীদের নিয়ে একটি সভায়  হঠাৎ করেই জিল আব্রামসনের চাকরিচ্যুতির ঘোষণা দেন। এজন্য কোন কারণও তিনি দেখাননি। শুধু বলেন, জিল আব্রামসনের প্রস্থান স্বেচ্ছায় ঘটেনি। পরে তিনি নতুন সম্পাদক হিসেবে ডিন ব্যাকুয়েটকে পরিচয় করিয়ে দেন। 

নিউইয়র্ক টাইমসের নির্বাহী সম্পাদক হিসেবে যোগ দেওয়ার আগে ডিন ব্যাকুয়েট একই পত্রিকার ওয়াশিংটন ব্যুরো প্রধান হিসেবে কাজ করেন। এর আগে লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমসের সম্পাদক ছিলেন ডিন ব্যাকুয়েট।

২০১১ সাল থেকে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন আব্রামসন। তাঁর এমন হঠাৎ চাকরিচ্যুতিতে বিস্মিত হয়েছেন নিউইয়র্ক টাইমসের কর্মী ও সংবাদপত্রসেবীরা। প্রকাশ্যে কেউ কোনো কারণের কথা বলেননি। তবে অনেকেই বলছেন, পত্রিকাটির ব্যবস্থাপনা নিয়ে প্রধান নির্বাহী মার্ক থমসন ও প্রকাশক আর্থার সালজবার্গের সঙ্গে জিল আব্রামসনের বিরোধ চলছিল। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘আমি নিউইয়র্ক টাইমস পত্রিকাটি চালানোর কাজ বেশ উপভোগই করেছি। বিশ্বের সেরা সাংবাদিকদের সাথে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি’।

অবশ্য নিউইয়র্ক টাইমসের সংবাদ কক্ষের ওপর কখনো প্রকাশক বা ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে কোনো হস্তক্ষেপ করা হয় না বলে দাবি করা হয়ে থাকে। ফ্রান্সের লাঁ মঁদে ম্যাগাজিনের সিনিয়র স্টাফদের সাথে ক্ষমতা নিয়ে দ্বন্দ্ব থেকেই এর সম্পাদক নাতালি সরে দাঁড়ান বলে জানা গেছে। লাঁ মঁদে’র ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক চিঠিতে তিনি লিখেছেন, ব্যক্তিগত আক্রমণের শিকার হয়ে তিনি পত্রিকাটিকে নিয়ে পরিকল্পনা করেছিলেন, তা ভেস্তে গেছে।

 

 

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.