‘ফিরিয়ে দাও আমাদের মেয়েদের’

Nigerian Girlsউইমেন চ্যাপ্টার: ‘ফিরিয়ে দাও আমাদের মেয়েদের’ বিশ্বজুড়ে দাবির মুখে নাইজেরিয়ার সরকার অবশেষে ইসলামী জঙ্গী গোষ্ঠী বোকো হারামের সাথে অপহৃত দু’শতাধিক স্কুল ছাত্রীর মুক্তির ব্যাপারে আলোচনায় বসতে রাজী হয়েছে।

প্রায় চার সপ্তাহ আগে নাইজেরিয়ার উত্তর পূর্বাঞ্চলের একটি স্কুল থেকে এই স্কুলছাত্রীদের অপহরণ করে ইসলামপন্থী গোষ্ঠি বোকো হারাম। গত রোববার জঙ্গি সংগঠনটি একটি ভিডিও চিত্র প্রকাশ করে। যেখানে হিজাব পরা বেশকিছু মেয়েকে বসে থাকতে দেখা যায়। সংগঠনটির নেতা এই মেয়েদের অপহৃত স্কুলছাত্রী দাবি করে এদের মুক্তির বিনিময়ে সংগঠনের আটককৃত সদস্যদের মুক্তি দাবি করে। তবে নাইজেরিয় সরকার জঙ্গিদের এই আহ্বানকে নাকচ করে দিয়ে প্রথমে বলে যে, কোনো চিহ্নিত সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর এ ধরনের আবদার পূরণের কোন প্রশ্নই উঠে না। বিশেষ করে দেশের নিরাপত্তা প্রশ্নে কোন ধরনের আপোস চলবে না বলেও হুঁশিয়ার করে দেয় সরকার।

কিন্তু মাত্র একদিন পরই সরকারের সুর নরম হয়ে আসে।  নাইজেরিয়ার একজন প্রভাবশালী মন্ত্রী টানিমু টুরাকি বিবিসিকে বলেন, বোকো হারাম যদি বন্দী বিনিময়ের ব্যাপারে আন্তরিক হয়, তাহলে সরকারও তার জন্য প্রস্তুত। তিনি বোকো হারামের নেতা আবুবাকার শেকাওকে উদ্দেশ্য করে বলেন, তার এখন উচিৎ তার বিশ্বস্ত কোনো প্রতিনিধিকে সরকারের কাছে পাঠানো।

নাইজিরিয়ার ওই মন্ত্রী বলছেন, ”আবুবকর শেকাও এখন খোলাখুলি বলুক, এরা আমার প্রতিনিধি, সরকার এদের সাথে কথা বলুক। সরকারের সংশ্লিষ্ট কমিটি তখন তাদের সাথে বসে এই অপহৃত মেয়েদের বিষয়সহ সব বিষয়ে কথা বলবে।” অপহৃত মেয়েদের উদ্ধারে সরকার সামরিক অভিযানের পথে যেতে পারে, এ ধরনের ধারণা নাকচ করে দেন নাইজেরিয়ার ওই মন্ত্রী। আমেরিকা, ব্রিটেনসহ বেশ কটি দেশ এখন এই মেয়েদের অবস্থান শনাক্ত করার কাজে নাইজেরিয়াকে সহায়তা করছে। ইতিমধ্যে নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট গুডলাক জনাথান উত্তর পূর্বের ওই এলাকায় জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরো বাড়ানোর প্রস্তাব করেছেন।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.