ত্বকী হত্যার তদন্তে আজমিরির অফিস থেকে রক্তমাখা প্যান্ট উদ্ধার

toki hottyaউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: ত্বকী হত্যার ঘটনায় সাংসদ নাসিম ওসমানের ছেলে আজমিরি ওসমানের কার্যালয় থেকে একটি রক্তমাখা প্যান্ট উদ্ধার করেছে র‌্যাব।

বুধবার দুপুরে শহরের আল্লামা ইকবাল রোডে আজমিরির মালিকানাধীন উইনার ফ্যাশনসে অভিযান চালিয়ে এটি উদ্ধার করা হয়। অভিযানে ওই কার্যালয়ের দারোয়ানসহ আরও মোট তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

ত্বকীর বাবা নারায়ণগঞ্জের সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বি আজমিরির অফিসটিকে ‘টর্চার সেল’ আখ্যায়িত করে আসছে। সেখানেই ত্বকীকে হত্যা করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করে আসছেন তিনি।

অভিযানটি বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শুরু হয় বলে জানিয়েছে প্রত্যক্ষদর্শিরা। প্রায় ৪০ জন র‌্যাব সদস্য অভিযানে ছিলেন বলেও জানান অনেকে।

মামলার তদন্তের অংশ হিসেবে তারা এই অভিযান চালিয়েছেন উল্লেখ করে অভিযানের নেতৃত্বে থাকা লেফটেন্যান্ট কর্নেল জাহাঙ্গীর আলম সাংবাদিকদের বলেন, “ঘটনাস্থল থেকে একটি রক্তমাখা আকাশি রংয়ের জিন্স প্যান্ট, তিনটি লাঠি, একটি কম্পিউটার সিপিইউ, এলসিডি টিভি, কয়েকটা সিসি ক্যামেরা জব্দ করা হয়েছে।”

অভিযান চলাকালীন সময়ে র‌্যাব ওই এলাকার রাস্তাঘাট বন্ধ করে দেয়। জনসাধারণের চলাচলও সীমিত করা হয়।

আজমিরি ওসমান নারায়ণগঞ্জের আওয়ামী লীগ নেতা শামীম ওসমানের ভাতিজা ও সাংসদ নাসিম ওসমানের ছেলে।

এসময় মামলার আরেক সন্দেহভাজন রাজিবের বাড়িতেও অভিযান চালানো হয়। তবে সেখানে কিছু পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

ইতিপূর্বে পুলিশের হাতে থাকা মামলটির তদন্তভার র‌্যাবকে দেয় আদালত।

নারায়নগঞ্জ গণজাগরণ মঞ্চের উদ্যোক্তা রফিউর রাব্বির ছেলে তানভীর মোহাম্মদ ত্বকী গত ৬ মার্চ বাসা থেকে বেরিয়ে নিখোঁজ হন। ৮ মার্চ শীতলক্ষ্যার একটি খালে তার লাশ পাওয়া যায়।

সে রাতেই ত্বকীর বাবা সদর মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন করে ১৮ মার্চ শামীম ওসমান, তার ছেলে অয়ন ওসমান, যুবলীগ নেতা পারভেজ, জেলা ছাত্রলীগসহ সভাপতি রাজীব দাস, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, সালেহ রহমান সীমান্ত ও রিফাতকে দায়ী করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পুলিশ সুপারকে একটি অবগতিপত্র দেন তিনি।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.