নাদিয়ার ওপর হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ

nadia-উইমেন চ্যাপ্টার: গত ৬ মে ঢাকার শাপলা চত্বরে হেফাজতে ইসলামের সমাবেশের খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে সাংবাদিক নাদিয়া শারমিনের ওপর হামলাকারীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

সেইসাথে মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব গোয়েন্দা পুলিশকে (ডিবি) দিতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি আহত নাদিয়াকে কোন সরকারি হাসপাতালে ভর্তি এবং সরকারি খরচে কেবিনে রেখে প্রয়োজনীয় চিকিৎসার ব্যবস্থা করতেও বলা হয়েছে সংশ্লিষ্টদের।

একটি রিট আবেদনের প্রথমিক শুনানি করে বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি এবিএম আলতাফ হোসেনের বেঞ্চ আজ রোববার এই এই নির্দেশ দেয়।

সাংবাদিক নাদিয়া শারমিনের ওপর হামলাকারীদের দ্রুত খুঁজে বের করে আদালতে হাজির করতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না- তা জানতে চেয়ে একটি রুলও জারি করেছে হাই কোর্ট।

স্বরাষ্ট্র সচিব, স্বাস্থ্য সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, ঢাকা মেডিকেল কলেজের পরিচালক, পুলিশের মহাপরিদর্শক, গোয়েন্দা পুলিশের জয়েন্ট কমিশনার, মতিঝিল জোনের উপ-কমিশনার, মতিঝিল থানার ওসিকে চার সপ্তাহের মধ্যে এর জবাব দিতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি সরকারি হাসপাতালের কেবিনে রেখে নাদিয়াকে পর্যপ্ত চিকিৎসা দিতে স্বাস্থ্য সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, ঢাকা মেডিকেল কলেজের পরিচালককে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

আদালত বলেছে, জ্যেষ্ঠ অধ্যাপকদের নিয়ে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করে ওই বোর্ডের পরামর্শ অনুসারে নাদিয়ার চিকিৎসায় যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে। বোর্ড পরামর্শ দিলে এই সাংবাদিককে সরকারি খরচে বিদেশ পাঠাতে বলা হয়েছে স্বাস্থ্য সচিবকে।

এছাড়া তদন্তের জন্য মামলাটি গোয়েন্দা পুলিশের কাছে হস্তান্তরে সাত দিনের মধ্যে পদক্ষেপ নিতে পুলিশের মহাপরিদর্শক, গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনারকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আসামিদের বিরুদ্ধে আইন অনুসারে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে তদন্তকারী কর্মকর্তাকে।

গত ৬ এপ্রিল মতিঝিলে হেফাজতে ইসালামের সমাবেশ চলাকালে দায়িত্ব পালনের সময় হামলায় আহত হন একুশে টেলিভিশনের প্রতিবেদক নাদিয়া। হেফাজতী হামলায় নাদিয়ার পায়ের দুটো লিগামেন্ট ছিঁড়ে যায়। সেই সঙ্গে চিড় ধরে হাঁটুর জোড়ায়। বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের চিকিৎসকরা ওই সময় একবার হাঁটুতে অপারেশন করেন।

গত ১ জুলাই হয় দ্বিতীয় দফা অপারেশন। আদালতে আবেদনকারী পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিত রায়।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.