আমরা এখন অনেক স্মার্ট

শাহীন আক্তার: আমরা এখন অনেক স্মার্ট, এতো বেশি স্মার্ট তাইতো আমাদের হিজাব পরতে টিউটোরিয়াল লাগে। আমরা এখন  অনেক স্মার্ট, এত বেশী স্মার্ট তাইতো যে কারো ছবি দেখলে সেক্সি (স্মার্ট শব্দ) মন্তব্য করা লাগে,  হোক সেটা বাবার কোলে চার মাস বয়সী মেয়ের ছবি (সাকিব আল হাসানের পারিবারিক ছবি), অথবা আদরের ছোট বোনের সাথে তোলা কোন মুহূর্ত ( ক্রিকেটার নাসিরের ছবি)।

আমরা এখন এত স্মার্ট, রাস্তাঘাটে দাঁড়িয়ে শাহরুখ স্টাইলে প্রপোজ  করতে পারি, আবার অমিতাভ  বচ্চন স্টাইলে(মহাব্বতে) কলেজ থেকে বহিস্কার করতে পারি (যদিও হাজার হাজার ছাত্র নামধারী সন্ত্রাসীরা কখনো বহিষ্কার হয় না)।

আমরা এখন এত স্মার্ট,  কোরান তেলওয়াত করতে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়া লাগে রিডিং হলি কোরান।

আমরা এখন এতই স্মার্ট চাইলেই কানে ধরাতে পারি একজন শিক্ষককে। আমরা এখন এতই স্মার্ট,  কথায় কথায় আমাদের ধর্মীয় অনুভূতি আছড়ে পড়ে ফেসবুক পেজে। আমরা এতো স্মার্ট যে ইহুদীর দেশে বসবাস করতে পারি, তাদের চামড়া চেটে উপার্জিত পয়সা দিয়ে ফুটানি করতে পারি কিন্তু তাদের সাথে আত্মিক কোন সম্পর্ক মেনে নিতে পারিনা। আমরা এখন এতোই স্মার্ট, কারো কোন পোস্টের নিচে অশ্লীল মন্তব্য করতে আমাদের হাত কাঁপে না একটুও। আমরা এতো স্মার্ট কেরে!

একটা সময় ছিল যে কোন বিষয়কে দুটো রাজনৈতিক দলে ভাগাভাগি করে পক্ষে বিপক্ষে যুক্তি দাঁড় করানো স্মার্টনেস।এখন তার সাথে নতুন সংযোজন ধর্ম। ধর্ম নিয়ে, কাঁদা ছোঁড়াছুড়ী স্মার্টনেসের বহিঃ প্রকাশ।  এখন দোষীর নয়, বরং যে  ভিকটিম তার চরিত্র বিশ্লেষণই ব্যাপক স্মার্টনেস প্রকাশ পায়।

কোন নারী লাঞ্ছিত হলে তার পোশাক-আশাক নিয়ে আলোচনা করাই তো যুগোপযোগী।  

নারীদের হেয় করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়ার নামই আধুনিকতা, যে আধুনিকতার নিচে হারিয়ে যায় নিজের মা-বোন। তাইতো উঠতি বয়সের কিছু ছেলেফেলের এতটুকু বিবেকে বাঁধে না একটি নারী মূর্তি নিয়ে অশ্লীল ভঙ্গীতে ফেসবুকে পোস্ট দিতে।

আমাদের সমাজটা আর কত স্মার্ট হলে আমাদের নেতা নেত্রীরা টিনের চশমা খুলে বাস্তবে ফিরে আসবেন!

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.