টপিকাহন-মানবাধিকার কর্মীরা কোথায়?

শামসুল ইসলাম শামীম: টপি- সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বি একজন গৃহবধু। নিতান্তই সরল, গ্রামের সহজিয়া মেয়ে। মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার বিজলী গ্রামের বাসিন্দা। এই গৃহবধু ও তার পিতৃপরিবার গত প্রায় ৫ বছর থেকে একঘরে জীবন কাটাচ্ছেন।

Topi Kahonআমাদের কিছু নারীনেত্রী আর কতিপয় মানবাধিকার নেতা যখন নারীর অধিকার নিয়ে কন্ঠনালী চৌচির করে ফেলেন তখন এই টপিরা মধ্যযুগীয় বর্বর আইনের কাছে অসহায় হয়ে গুমরে-গুমরে কেঁদে মরে। নারীনেত্রী আর মানবাধিকার নেতাদের আস্ফালন টপিদের জন্য কোন সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারে না।

পথে বেরুলেই দেখি অমুক মানবাধিকার, তমুক মানবাধিকারের ‘তকমা’ লাগানো গাড়িগুলো ট্রাফিক আইনের তোয়াক্কা না করেই হনহনিয়ে চলে যায়, হজম করি; এই ভেবে, অন্তত এরা সমাজের জন্য কিছু করছে! কিন্তু কি করছে? মানুষ হয়েও টপি কেনো মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে? কি অপরাধ টপির নিষ্পাপ শিশু সন্তানটির?

টপির অপরাধ কি? টপির অপরাধ একটাই, সে বিধবা হয়ে দ্বিতীয় বিয়ে করেছে! টপি দ্বিতীয় বিয়ে করেছে এটা তার অপরাধ! প্রথম বিয়ের পাঁচ বছরের মাথায় স্বামী মারা যাবার পর শ্বশুড়বাড়ির নির্যাতন সইতে না পেরে বিধবা টপি একমাত্র ছেলেটিকে নিয়ে পিতৃগৃহে ফিরে আসে। পিত্রালয়ের অভাব আর শিশু সন্তানটির মাথার উপর একটু ছায়ার প্রয়োজন ভেবে টপি দ্বিতীয় বিয়ে করে। আর যায় কোথায়? জাত গেলো, সমাজ গেলো বলে সমাজপতিরা টপির এই ‘অমার্জনীয় অপরাধ’-এর কারণে টপির গোটা পিতৃপরিবারকে একঘরে করে দেয়।

এখানেই শেষ নয়, টপির দ্বিতীয় স্বামীকে মারধোর করে গ্রাম ছাড়া করেছেন এই সমাজপতিরা! টপির দ্বিতীয় বিয়ের অপরাধকে পুঁজি করে তার চাচাতো ভাইরা উঠে পড়ে লাগে টপির দরিদ্র পিতার ভিটেমাটিটুকু নিজেদের দখলে নিতে। তরুণী গৃহবধু টপি বাইরে বেরুতে পারে না, বখাটেরা ‘প্রতিরাতের জন্য দাম হাঁকে’! বাইরে বেরুতে পারেনা টপির অবুঝ শিশুটিও। ছেলের কাছে তার মায়ের ‘রেট কতো’ জানতে চায় জারজ কুলাঙ্গাররা। শান্তিতে নেই টপির ভাইও। টপিকে ঘরছাড়া করতে গত পাঁচ বছর থেকে তার উপর চলছে মানসিক নির্যাতন। অসহায় টপির পাশে নেই কেউ!

টপি দ্বিতীয় বিয়ে করেছে এটা তার অপরাধ! আর যারা বিয়ে ছাড়া পেঠে জন্মানো ভ্রুণ হত্যা করছে, নিজের পাপ ঢাকতে সদ্যজাত নবজাতককে ফেলে দিচ্ছে আস্তাকুঁড়ে, কুকুর যখন টানাটানি করে জলজ্যান্ত নবজাতক নিয়ে, অপকর্মের দায় এড়াতে কুমারী মা যখন তার নবজাতককে ছয় তলা থেকে ছুঁড়ে ফেলে রাস্তায় তখন সেটা অপরাধ হয় না? এসব অপরাধ কি আইনের চোখে অধর্তব্য অপরাধ?
এসব জঘণ্য অপরাধ করে যদি উচুঁতলার মানুষেরা পার পেয়ে যায়, তবে গ্রাম্য গৃহবধু টপির দ্বিতীয় বিয়ের অরাধের শাস্তি কি হতে পারে? নারীনেত্রী, মানবাধীকার নেতা, আইন প্রয়োগকারী কর্তা ব্যক্তিরা আর সমাজপতিরা জবাব দেবেন কি?

(ফেসবুক থেকে নেয়া)

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.