ভারতে থাকার আশ্বাস পেলেন তসলিমা

Taslima 1উইমেন চ্যাপ্টার: লেখিকা তসলিমা নাসরিনের ভারতে থাকার ব্যাপারে অনুমতি মিলেছে। গতকাল শনিবার তিনি ভারতের রেসিডেন্ট পারমিট বা বসবাসের অনুমতির বিষয়ে সৃষ্ট জটিলতা নিয়ে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে দেখা করার পর তাকে এই অনুমতি দেয়া হয়।

বিবিসি বাংলার এক রিপোর্টে বলা হয় যে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাঁকে আশ্বস্ত করেছেন যে দীর্ঘদিন ভারতে থাকতে তার কোনও অসুবিধা হবে না।

তসলিমা নাসরিন গতকাল  দিল্লিতে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন এদেশে তাঁর বসবাস করার অনুমতির ভবিষ্যত নিয়ে কথা বলতে।

গত প্রায় দশ বছর ধরেই তিনি ভারতে রেসিডেন্ট পারমিট নিয়মিত নবায়ন করিয়ে আসছেন – প্রতি বছর। কিন্তু এবারে নবায়নের জন্য আবেদন করা সত্ত্বেও প্রথমে কিছুই জানায় নি ভারত সরকার।

তারপর, কয়েকদিন আগে তাঁকে দু’মাসের পর্যটক ভিসা দেওয়া হয়। তসলিমা নাসরিন এই নিয়ে তাঁর উদ্বেগের কথা ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে বিস্তারিত ভাবে জানানোর পরে আজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন।

মিস নাসরিন  বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন যে ভারতে দীর্ঘদিন থাকতে যে তাঁর কোনও অসুবিধা হবে না – এই আশ্বাস তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছ থেকে আজ পেয়েছেন।

ওই বৈঠকে নিজের লেখা কয়েকটি বইয়ের হিন্দি অনুবাদ সঙ্গে করে নিয়ে গিয়েছিলেন ওই বিতর্কিত লেখিকা।

তিনি বিবিসি-কে আরও জানিয়েছেন যে সুইডেন থেকে বিপুল সংখ্যক বই তিনি ভারতে নিয়ে আসার কথা ভাবছিলেন – পর্যটক ভিসা পাওয়ার পরে সেই পরিকল্পনা থেকে সরে আসতে হবে কী না, সেটাও তিনি মন্ত্রীর কাছে জানতে চেয়েছিলেন। রাজনাথ সিং জানিয়েছেন যে বইপত্র নিয়ে আসতেই পারেন তিনি – এমনটাই দাবী তসলিমা নাসরিনের।

তসলিমা নাসরিন ২০০৪ সাল থেকেই রেসিডেন্ট পার্মিট নিয়ে কলকাতায় থাকতেন, কিন্তু ২০০৭ সালের শেষ দিকে তাঁর লেখার বিরুদ্ধে কলকাতায় ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয়েছিল – যা একসময়ে প্রায় দাঙ্গার চেহারা নেয়। তাঁকে কলকাতা ছাড়তে হয়েছিল আর রাজ্য সরকারকে সেনাবাহিনী নামিয়ে পরিস্থিতি সামাল দিতে হয়েছিল।

সেইসময়েই তাঁকে কলকাতা থেকে প্রথমে জয়পুর আর পরে দিল্লিতে নিয়ে যায় ভারত সরকার। মাঝের কয়েকবছর দিল্লি আর বিদেশ মিলিয়ে থাকলেও গত সাড়ে তিনবছর ধরে মিস নাসরিন ভারতের রাজধানীতেই পাকাপাকিভাবে থাকেন।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.