অবশেষে সুচিত্রা সেনের পৈতৃক বাড়ি উদ্ধার

Suchitra's bariউইমেন চ্যাপ্টার: বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তী নায়িকা সুচিত্রা সেনের পাবনার গোপালপুরের পৈতৃক বাড়িটি দুই যুগেরও বেশি সময় পর আপাতত রাহুমুক্ত করা গেছে। অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে অবশেষে ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউটের কাছ থেকে স্থানীয় প্রশাসন তাদের দায়িত্বে নিয়েছে।

দীর্ঘ প্রায় তিন যুগ পরে আজ বুধবার বেলা ১২টার দিকে সদর উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শামীম আরা রিনির নেতৃত্বে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা বাড়িটি দখলে নিয়ে তালা ঝুলিয়ে দেন।

বাড়িটি দখলমুক্ত করতে প্রশাসন দীর্ঘ দিন ধরে চেষ্টা চালিয়ে আসলেও আইনি জটিলতায় তা বার বার বাধাপ্রাপ্ত হয়।

জামায়াতে ইসলামী পরিচালিত ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউট এই বাড়িটি ইজারা নিয়েছিল ১৯৮৭ সালে। সাম্প্রতিক সময়ে বাড়িটি সংরক্ষণের দাবিতে স্থানীয় বিভিন্ন সংগঠনের আন্দোলনের মুখে প্রশাসন ইজারা বাতিল করতে বাধ্য হয়।

পাবনার জেলা প্রশাসক কাজী আশরাফ উদ্দিনের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, প্রশাসনের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউট উচ্চ আদালতে গিয়েছিল। আদালত ইজারা বাতিলের সিদ্ধান্ত বহাল রেখে প্রতিষ্ঠানটির রিট আবেদন খারিজ করে দেয়। একইসাথে আদালত বাড়িটিকে স্থানীয় প্রশাসনের হাতে তুলে দেওয়ার নির্দেশ দেয়।

সেই নির্দেশ অনুযায়ী জেলা প্রশাসন বাড়িটিকে এখন তাদের দায়িত্বে নিয়েছে।

বাড়িটি নিয়ে এখন কী করা হবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত সরকার নেবে বলে বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.