হায়রে আমার স্পেন, হায়রে ক্যাসিয়াস

Dipa
নাহিদ দীপা

নাহিদ দীপা: বিশ্বকাপ জ্বরের অসুখে দ্বিতীয় ডোজ পড়েছে শুক্রবার। জ্বর তো বাড়ছেই। কমছে না। তবে ৩২ দিনের মাথায় ফুল ডোজ শেষে ঠিক কমে যাবে জানি। তবে কাঁপাকাঁপিতে খিঁচুনি না ধরে। সেটাই ভাবনার বিষয়। প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক হিসাবে ক্রোয়েশিয়াকে কাবু করবে ব্রাজিল এটা ধারণা করতে পেরেছিল অনেকেই। কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচে কাপজয়ী স্পেন যে ডাচদের কাছে এমন ধরাশায়ী হবে, ভাবতে পেরেছিল কেউ? তবে বাজির দর দুদলেই উঠেছিল ঠিক ঠিক। আর অঘটন ঘটনে যারা বিশ্বাসী তারা যে বাজিমাত করেছেন, সে তো পুরানো কিচ্ছা এখন।

হায়রে আমার স্পেন, হায়রে ক্যাসিয়াস। চিরচেনা লাল রংয়ে ছিল না স্পেন। ডাচরাও বদলেছিল পোশাক। আর তাতেই কিনা বদলে গেল ম্যাচের ফল। স্পেনের ফুটবল শৈলী তিকি তাকাকে তবলার তুক তাক বানিয়ে ফেললো ডাচম্যানরা।

অসুস্থতা কাটিয়ে ১৩ দিন পড়ে ভোরে অফিস। তাই প্রথম যখন স্পেন গোল করলো, নিশ্চিত জয় জেনে বিছানায় গেলাম। খেলা পাগল আমার বর, টিভির শব্দ কমিয়ে, ঠিকই ধারাভাষ্য দিচ্ছিল আমাকে। দ্বিতীয়ার্ধে যেন আর বাঁধ রইলো না। ফ্লাইং ডাচম্যান রবেনের গোল দেখাতে জোর করে উঠিয়ে বসালো। মুগ্ধতার সীমা ছাপিয়ে শেষে রাগ লাগলো এমন স্কোর দেখে। ধুর!!! আমার বাজির ঘোড়া স্পেন ছিল কিনা!!

যাই হোক। সমর্থন থাকুক নিজের জায়গায়। অবাক হলাম ক্যাসিয়াসের কাণ্ড দেখে। যে গোল কিপার কিনা বিশ্বকাপের গত ১০ ম্যাচে গোল না খাওয়ার রেকর্ডকে বাড়িয় নিতে মাঠে নেমেছিল, যে যেন ডাচম্যানদের বিদায়ী পোশাকের রংয়ে সর্ষে দেখছিল চোখে। যদিও সর্ষে কমলা রংয়ের নয়। দুদলের ফর্মেশনেও ছিল ফারাক। ডিফেন্সিভ হয়েও নেদারল্যান্ডের আক্রমণে দিশেহারা হয়েছে, আক্রমণাত্মক ফর্মেশনে থাকা স্পেন। তবু ট্রেবল জয়ীদের (ইউরো ২০০৮, ২০১০, বিশ্বকাপ ২০১০) এমন নাকানি চুবানি ঠেকানো যায়নি।

বাকি দুই ম্যাচে অবশ্য হিসাব পাল্টাতে পারেনি অস্ট্রেলিয়া এবং ক্যামেরুন। আফ্রিকান দেশ ক্যামেরুনকে ১-০ গোলে হারিয়েছে আরেক মহাদেশ উত্তর আমেরিকার মেক্সিকো। আর দিনের শেষ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া ৩-১ গোলে হার মেনেছে চিলির কাছে।

বিশ্বকাপ জ্বরের তৃতীয় রাতে, ম্যাচ থাকছে তিন খানা। কলম্বিয়া-গ্রিস, উরুগুয়ে-কোস্টারিকা আর ইতালি এবং ইংল্যান্ড। তৃতীয় ম্যাচটি এবারের আসরের দ্বিতীয় বিগ ম্যাচ।

কে কোন ম্যাচ দেখবেন জানিনা, টিভির পর্দায় আমার চোখ থাকবে রাত চারটার ইতালি আর ইংল্যান্ডের ম্যাচের দিকে।

নাহিদ দীপা: স্পোর্টস রিপোর্টার

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.