নিরাপদ বোধ করছে না রিজওয়ানা পরিবার

Rizwana 3উইমেন চ্যাপ্টার: বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান বলেছেন, তাঁর স্বামী আবু বকর সিদ্দিক নিরাপদে ফিরে এলেও তাঁরা নিরাপদ বোধ করছেন না। তিনি তাঁর পরিবারকে নিরাপত্তা দেওয়ার দাবি জানান।

রিজওয়ানা বলেন, ‘অপহরণের মতো ঘটনা যেন আর না ঘটে। কোনো সভ্য গণতান্ত্রিক দেশে এ ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে না। এটাই যেন এ দেশে এ ধরনের শেষ ঘটনা হয়।’
অপহরণের ঘটনার রহস্য শিগগিরই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী উদঘাটনে সক্ষম হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন রিজওয়ানা হাসান।

শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর সেন্ট্রাল রোডে নিজ বাসায় এক সংবাদ সম্মেলনে গণমাধ্যম কর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘গণমাধ্যমকর্মীরা দুই দিন ধরে আমার পাশে ছিলেন। সারা দেশের মানুষ আমার স্বামীর অপহরণের ঘটনাটিকে নিজস্ব নিরাপত্তার বিষয় হিসেবে দেখেছেন। আসলে আমি জানি না কীভাবে আপনাদের এই ঋণ শোধ করব। এখানে কৃতজ্ঞতা জানালে কম হয়ে যায়।’

পাশাপাশি তিনি ধন্যবাদ জানান আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকেও। প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে রিজওয়ানা বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় সমর্থন ছাড়া এত দ্রুত উদ্ধার করা সম্ভব ছিল না। সব অপহরণই ঘৃণ্য। সব অপহরণের ঘটনাকেই সমান গুরুত্ব দেওয়া হয় না। তবে এই ঘটনাকে গুরুত্ব দেওয়ায় আপনাদের সামনে হাসিমুখে বসতে পেরেছি।’

রিজওয়ানা বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ, বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদসহ সবাইকে তাঁদের উদ্বেগ প্রকাশের জন্য ধন্যবাদ জানান।

রিজওয়ানা হাসানের স্বামী আবু বকর সিদ্দিক তাঁর অপহরণের সময় থেকে উদ্ধার হওয়া পর্যন্ত বিভিন্ন ঘটনার কথা তুলে ধরেন।

এদিকে এর আগে নারায়ণগঞ্জ মুখ্য বিচারিক হাকিমের আদালতে জবানবন্দি দেন আবু বকর সিদ্দিক। শুক্রবার বেলা পৌনে তিনটার দিকে জবানবন্দি শেষে আবু বকরকে পুলিশি নিরাপত্তায় তাঁর কর্মস্থল নারায়ণগঞ্জের দাপা ইদ্রাকপুর এলাকার হামিদ ফ্যাশনে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে বেলা সোয়া তিনটার দিকে আবু বকরকে নেওয়া হয় ভুইগড়ে।

এখান থেকেই গত বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে আবু বকরকে অপহরণ করা হয়। বৃহস্পতিবার রাত আড়াইটার দিকে মিরপুরে তাকে চোখ বেঁধে ফেলে রেখে যায় অপহরণকারীরা।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.