যুক্তরাষ্ট্রে আবারও গুলি, নিহত ৪

উইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক (জুন ৮): যুক্তরাষ্ট্রে অস্ত্র ব্যবহার নিয়ে এতো আলোচনা-তর্ক-বিতর্ক এবং আশ্বাসের পরও আবারও উন্মত্ততার ঘটনা ঘটলো। এবার ঘটেছে ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের সান্তা মনিকা শহরে ৭ জুন শুক্রবার দুপুরে। বন্দুকধারী একাই চারজনকে খুনের পর পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন।
শহরের পুলিশ কর্মকর্তা রিচার্ড লুইস জানিয়েছেন, বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট গায়ে আনুমানিক ২০ বছর বয়সি এক যুবক একটি বাড়িতে দুজনকে খুনের পর স্থানীয় কলেজে ঢুকে হত্যা করে আরো দুজনকে।
বাড়িতে নিহত দুজন ওই যুবকের বাবা ও ভাই বলে জানিয়েছে লস এঞ্জেলেস টাইমস।
রাইফেলধারী ওই যুবককে পরে স্থানীয় কলেজের গ্রন্থাগারে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।
সান্তা মনিকায় যখন এই ঘটনা ঘটে, ঠিক সেই সময়েই কাছের শহরেই তহবিল সংগ্রহের অভিযানে ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।
হত্যাকাণ্ডে ওই যুবককে প্ররোচিত করার সন্দেহে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। যুবকটির পরনে টি শার্টে লেখা রয়েছে ‘জীবন এক জুয়া’।
গুলিতে আহত আরো কয়েকজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, আহত একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এছাড়া একজনের অস্ত্রোপচার এবং আরো তিনজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওই যুবক সান্তামনিকার একটি কলেজের দিকে গিয়ে চলমান যানবাহনগুলো লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি চালানো শুরু করেন। সেখান থেকে সরাসরি তিনি কলেজ ক্যাম্পাসে ঢুকে এক নারীকে হত্যা করেন এবং গ্রন্থাগারের দিকে যান। সেখানে তখন শিক্ষার্থীদের ভিড় ছিল।
কলেজের প্রশাসনিক এক কর্মকর্তা বলেন, “আমরা দেখলাম এক নারী মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেলেন।”
শহরের পুলিশ প্রধান জ্যাকুলিন সিব্রুকস বলেন, গ্রন্থাগারে ঢুকে ওই যুবক গুলি চালালেও তাকে কেউ হতাহত হয়নি। এরই মধ্যে পুলিশ এসে তাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় এবং এতে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়। তবে হামলাকারী একা ছিল, নাকি সঙ্গে আরও কেউ ছিল সেই ব্যাপারে নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ।
গত বছরের ডিসেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের কানেটিকাট রাজ্যের একটি স্কুলে এক বন্দুকধারী যুবকের হামলায় ২০ জন শিক্ষার্থীসহ ২৭ জন নিহত হন।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.