মনি চাকমা: পাহাড়ের প্রথম নারী চেয়ারম্যান

উইমেন চ্যাপ্টার: উন্নয়ন কর্মী থেকে রাজনীতি, আর সেখান থেকে জনপ্রতিনিধি হতে খুব বেশি সময় নেননি মনি চাকমা। পাহাড়ের প্রথম নারী উপজেলা চেয়ারম্যান হয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন তিনি। বছর কয়েক আগেও তিনি ছিলেন বেসরকারি উন্নয়ন সংগঠন ‘সোসাইটি ফর ইন্ডিজিনাস উইমেন প্রোগ্রেস (সুইপ)’ এর নির্বাহী পরিচালক। নিজের হাতে গড়া এই সংগঠনটির কাজেই সবসময় ব্যস্ত থাকতেন তিনি।

কিন্তু ২০০৮ সালে ছোট ভাইয়ের হাতে সংগঠনের দায়িত্ব ছেড়ে দিয়ে তিনি বরকল উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এভাবেই তার হাতে খড়ি হয় ভোটের মাঠে। সেবার তিনি পরাজিত হলেও ভোটের ব্যবধান ছিল খুবই সামান্য। আর তাতেই যেন জেদ চেপে বসে তার। গত পাঁচ বছর ধরে তিনি কাজ করে গেছেন নিরলস, আর অপেক্ষা করেছেন মোক্ষম মূহূর্তের। এর মাঝে যতটুকু সময়, সবটাই ব্যয় করেছেন মানুষের পাশে দাঁড়ানোর, সক্রিয় হয়েছেন রাজনীতিতে, যোগ দিয়েছেন মিছিলে-মিটিঙে। তবে এতোসবের পিছনের কারণ জানা গেলো উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর। বাঘা বাঘা মনোনয়ন প্রত্যাশীদের পেছনে ফেলে বাগিয়ে নেন পাহাড়ের অন্যতম প্রধান আঞ্চলিক দল জনসংহতি সমিতির দলীয় সমর্থন।

নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী, বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান সন্তোষ চাকমাকে পরাজিত করে জয় ছিনিয়ে এনেছেন মনি চাকমা। আর এর মধ্য দিয়েই তিনি গড়ে নিয়েছেন এক নতুন ইতিহাস। পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রথম এবং একমাত্র নারী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। তাই একটু বিশেষ নজরই যেন তার দিকে সবার।

মনি চাকমা নিজেও এই চ্যালেঞ্জটুকু ভালভাবেই নিয়েছেন। নির্বাচনে দাঁড়ানোর আগেই তিনি বলেছিলেন, বরকলবাসীর জন্য কিছু করা তার অনেকদিনের স্বপ্ন। কাজেই সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের সুযোগ পেলে নিজের যথাসাধ্য চেষ্টা করবেন বলেও আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

বরকল উপজেলার ভূষণছড়া ইউনিয়নের পন্ডিতপাড়া গ্রামের মৃত প্রেমনেন্দু চাকমা ও কৃপাদেবী চাকমার সন্তান মনি চাকমা পড়ালেখা এসএসসি পর্যণ্ত।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.