২৩ মার্চ শুরু হচ্ছে মেয়েদের টি-টোয়েন্টি

ICC 2014উইমেন চ্যাপ্টার: দেশে আজ থেকে শুরু হচ্ছে ক্রিকেট উন্মাদনা। আইসিসি ওয়ার্ল্ড টুয়েন্টির পর্দা উঠতে যাচ্ছে আজ বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে। চারদিকে উৎসব উৎসব আমেজ। প্রখ্যাত মিউজিসিয়ান এ আর রহমান মাতাবেন আজ স্টেডিয়াম। সে নিয়েও দর্শক-শ্রোতাদের উন্মাদনার শেষ নেই।
ক্রিকেট সম্পূর্ণই অনিশ্চয়তার খেলা। আর টি-টোয়েন্টি হলেতো কথাই নেই। চরম উত্তেজনা-উৎকণ্ঠার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ছেলেদের আয়োজন শুরু হচ্ছে ১৬ মার্চ আফগানিস্তান ও স্বাগতিক বাংলাদেশের প্রথম কোয়ালিফায়িং ম্যাচের মধ্য দিয়ে। চলবে ৬ এপ্রিল পর্যন্ত। বাংলাদেশ এশিয়া কাপে নতুন দল আফগানিস্তানের কাছে হেরে গেলেও টি-টোয়েন্টিতে দলটিকে ভালভাবে নাস্তানাবুদ করার স্বপ্নই দেখছেন খেলোয়াড়রা।
ছেলেদের টি-টোয়েন্টি যখন চলবে দেশে, তখন পিছিয়ে থাকবে না নারী ক্রিকেটাররাও। সম্প্রতি এশিয়া কাপে যেদিন বাংলাদেশ জাতীয় দল মুখোমুখি পাকিস্তানের, স্বাধীনতার মাসে সব আশা-ভরসাকে নুইয়ে দিয়ে হেরে গেল তারা পাকিস্তানের কাছে, ঠিক তখনই অনেকটা নীরবেই পাকিস্তানকে হারিয়ে আলোচনায় উঠে আসে  বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট টিম। ২৩ মার্চ থেকে আবারও তারা মাঠে নামছেন। ছেলেদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরুর সপ্তাহখানেক পরই শুরু হচ্ছে নারীদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।

ছেলেদের বিশ্বকাপে মোট ৩৫ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হলেও মেয়েরা খেলবেন ২৫টি। তবে ২০১৬ বিশ্বকাপের কোয়ালিফাইড দল নির্ধারণে বাড়তি দু’টি ম্যাচ খেলা হবে এই ফাঁকে (২ মার্চ)।

২৩ মার্চ দেশের প্রথম গ্রিন গ্যালারি স্টেডিয়ামখ্যাত সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মেয়েদের ম্যাচের মধ্য দিয়ে শুরু হচ্ছে ধুম ধাড়াক্কা ক্রিকেটের এ আসর। ২৬ মার্চ ওয়েস্ট ইন্ডিজের মেয়েদের বিরুদ্ধে প্রথম মাঠে নামবেন স্বাগতিক বাংলাদেশের মেয়েরা। বিশ্বকাপ টি-টোয়েন্টিতে এবারই প্রথম মাঠে নামছে বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটাররা।

ক্রিকেটের অন্যতম শ্রেষ্ঠ এ আসরে অংশ নিচ্ছে দশটি দল। দলগুলোকে দু’টি গ্রুপে ভাগ করা হয়েছে। গ্রুপ এ ভুক্ত হয়ে খেলায় অংশ নিচ্ছে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, পাকিস্তান ও আয়ারল্যান্ড। আর গ্রুপ বি ভুক্ত হয়ে মাঠে নামছে বাংলাদেশ, ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ভারত ও শ্রীলঙ্কা।

২৩ মার্চ উদ্বোধনী দিন থেকে প্রতিদিন দু’টি করে ম্যাচ খেলবেন তারা। তবে ৩ এপ্রিল একটি ম্যাচ বেশি হবে (প্রথম সেমিফাইনাল)। ৪ এপ্রিল দ্বিতীয় সেমিফাইনালের পর ৬ এপ্রিল ফাইনাল দিয়ে শেষ হবে মেয়েদের বিশ্বকাপও।

অবশ্য, ফাইনাল ম্যাচের জন্য একদিন বাড়তি রাখা হয়েছে। বিশেষ কোনো প্রয়োজনে ৭ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হতে পারে মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনাল।

মিরপুরের শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে নির্ধারিত সেমিফাইনাল আর ফাইনাল ছাড়া সবগুলো ম্যাচেরই ভেন্যু সিলেটের গ্রিন গ্যালারি স্টেডিয়াম। সে হিসেবে বলাই যাচ্ছে, ২১ মার্চ ছেলেদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের ষষ্ঠতম ম্যাচ আয়োজনের পর মেয়েদের বিশ্বকাপ নিয়েই ব্যস্ত হয়ে পড়তে হবে গ্রিন গ্যালারিকে।

সিলেটের গ্রিন গ্যালারি স্টেডিয়ামে আসল লড়াই শুরু হওয়ার আগে নারায়ণঞ্জের ফতুল্লা খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম ও সাভারের বিকেএসপির মাঠে চলবে নারী ক্রিকেটারদের প্রস্তুতি পর্ব।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.