আজ আমি ত্বকীকে ধারণ করবো

Toki 2ফারহানা আনন্দময়ী: আমার বিশ্বাস প্রায় সকল নারীর ভেতরেই কম-বেশি মাতৃত্বের ভাব থাকেই থাকে। আমার চরিত্রের বৈশিষ্ঠের ভেতরেও সেই মাতৃভাব প্রবল… হয়তো অপ্রয়োজনেই প্রয়োজনের বেশি। যে কোনো রাস্তায়, খবরের কাগজে বা অন্য কোথাও কোনো দুঃখি, বিপন্ন বা অসুস্থ কিশোর বা কিশোরীর মুখ দেখলেই সঙ্গে সঙ্গে নিজের সন্তানের মুখটা মনে পড়ে যায়। ভাবি, তার কষ্টটা তো একইভাবে আমার মেয়ে বা ছেলেরও ভাগ্যে হতে পারতো। সমব্যাথী হই, সাধ্যের মধ্যে যেটুকু পারি সাহায্য করি।

গত বছর আজকের তারিখে যখন টিভি’র ব্রেকিং নিউজে ত্বকীর মুখটা দেখছিলাম, ওর অতলছোঁয়া মায়াবী চোখ দুটো দেখেছিলাম… কেন জানি পরমূহূর্তেই অধরার মুখটা ওর মুখে বসিয়ে ফেললাম, একেবারেই অধরার বয়সী, অধরার মতই মায়াভরা স্বপ্নময় এক মুখ। কষ্টে নীল হলাম, বেদনায় কুঁকড়ে গেলাম, ক্ষুব্ধ হলাম। ত্বকীকে আমি এর আগে চিনতাম না, কিন্তু চোখটা বড় টেনেছিল। এরপর পত্রিকা, মিডিয়ায় ওর সম্পর্কে একটু একটু জানলাম। আহা! সূর্যের মত আলো ছড়ানো এক ছেলে। কী লেখাপড়ায়, কী ব্যাক্তিত্বে, কী শিল্প-সংস্কৃতিতে… সবখানেই তার উজ্জ্বল দুর্দান্ত বিচরণ। নিজের অপরাধ জানলো না, অথচ জগতের নিষ্ঠুরতম শাস্তিটা পেয়ে চলে গেল। গত একটা বছর ধরে বন্ধু দীপক ভৌমিকের দেয়ালে ত্বকীর নানা ছবি দেখি, ওর কীর্তি পড়ি, ওকে নিয়ে হওয়া অনুষ্ঠানের খবর দেখি। প্রতিবারই চোখ ভেজে, বুকের জমিনটা নরম হয়ে ওঠে, অপারগতার গ্লানিতে মাটিতে মিশে যাই।

আজ সারাদিন আমি ত্বকীর বাবা-মা হয়ে থাকবো। জানি পারবো না, তবু যতটা সম্ভব চেষ্টা করবো ওদের কষ্টের অনুভুতির ভাগ একটু হলেও অনুভব করতে। আমার নিরপরাধ সোনার টুকরো ছেলেটার খুনি চোখের সামনে দাপটে ঘুরে বেড়াচ্ছে, ক্ষমতার শীর্ষপদের অপব্যাবহার করছে… আমি জানছি কে আমার সন্তানের হত্যাকারী, অথচ আমি অসহায়। একটা বিচার চাইতে পারি না, বিচার পাইনা, শাস্তি দিতে পারি না… এর চেয়ে কঠিন কষ্ট বোধহয় পৃথিবীতে আর কিছু নেই, এক অসহায় বাবা-মায়ের জন্য। যার কাছে বিচার চাইবার, সেই যখন অপরাধীকে আগলে রাখে, রাজনৈতিক স্বার্থ মুখ্য হয়ে ওঠে… তখন কি ত্বকীর বাবা-মার একবারও ইচ্ছে হয় না পোড়া দেশটার গায়ে আগুন ধরিয়ে দিতে ! ক্ষমতা বোধহয় মনুষ্যত্বের চোখ কান বুজিয়ে দেয়, নিজের অজান্তেই কখন যেন ক্ষমতাসীনদের রক্তের রঙ নীল হয়ে যায়… তাই তারা সত্য দর্শন করতে পারে না।

কিন্তু আমরা পারি, ক্ষমতাহীন সাধারণ মানুষ… আমরা অন্যায়কে অন্যায়রূপে দেখতে পাই, প্রকৃতিও তাই। আজ আমি অভিশাপ দিয়ে যাই ত্বকীর খুনীকে… মানুষ না পারুক, প্রকৃতি যেন তার বিচারটা করে একদিন। আমি জানি প্রকৃতি যখন শোধ নেয়, বড্ড নিষ্ঠুর হয় সেই শোধের ধরন।

ত্বকীর আত্মা শান্তি পাক।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.