দেবযানীর বিচার প্রক্রিয়া চলবে

Debjaniউইমেন চ্যাপ্টার: যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, ভারতীয় কূটনীতিক দেবযানী খোবরাগাড়ের বিচারপ্রক্রিয়া চালিয়ে যাবেন কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার বিবিসি অনলাইনের খবরে একথা জানিয়ে বলা হয়, নিউইয়র্কে দায়িত্বরত এই কূটনীতিককে গ্রেপ্তারের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্র-ভারতের দীর্ঘ সময়ের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কে টানাপোড়েন সৃষ্টি হলেও পিছু হটবে না যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন সূত্রের বরাত দিয়ে পিটিআইয়ের খবরে বলা হয়, ডেপুটি কনস্যুলার জেনারেল দেবযানীর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণে আরও বেশি পরিমাণ তথ্যপ্রমাণ জোগাড় করা হচ্ছে। তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রত্যাহার বা গ্রেপ্তারের ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করার কোনো প্রশ্নই ওঠে না। আগামী ১৩ জানুয়ারি দেবযানীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

গৃহকর্মী সংগীতা রিচার্ডকে ভিসায় মিথ্যা তথ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া ও কম মজুরি দেওয়ার অভিযোগে গত ১২ ডিসেম্বর দেবযানী খোবরাগাড়েকে তাঁর সন্তানের সামনে হাতকড়া পরিয়ে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাঁকে বিবস্ত্র করে তল্লাশি ও মাদকাসক্তদের সঙ্গে একই কক্ষে রেখে হয়রানি করা হয়েছে বলে ভারত অভিযোগ তোলে। এই ঘটনার পর পুরো ভারত জুড়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠে। তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে দিল্লিতে মার্কিন কূটনীতিকদের বাসা ও কার্যালয়ের সামনে থেকে নিরাপত্তা বেষ্টনী প্রত্যাহার করে নেয়া হয়।

দেবযানীর সঙ্গে এমন আচরণ ভিয়েনা সনদের লঙ্ঘন দাবি করে এর প্রতিবাদে ভারতীয় নেতারা ভারত সফরে যাওয়া মার্কিন প্রতিনিধিদলের সঙ্গে দেখা করেননি। তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা হিসেবে ভারতে মার্কিন কূটনীতিক ও সংশ্লিষ্টদের সুযোগ সুবিধা বাতিলসহ নানা পদক্ষেপ নেয়। ভারতীয় কর্তৃপক্ষ দেবযানীকে অতিরিক্ত সুরক্ষা দিতে জাতিসংঘে বদলি করে।

ভারত সরকার ও গণমাধ্যমের তীব্র সমালোচনার মুখে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি দেবযানীকে হয়রানির জন্য দুঃখও প্রকাশ করেন। তবে জানিয়ে দেন, দেবযানীর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের তদন্ত কাজ চলবে।

এদিকে দেবযানী তাঁর বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বরং গৃহকর্মী সংগীতার বিরুদ্ধে চুরি ও ব্ল্যাকমেইল করার অভিযোগ এনেছেন। বর্তমানে তিনি জামিনে আছেন। অন্যদিকে, গৃহকর্মীর পক্ষ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে বেশকিছু বিক্ষোভও হয়েছে।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.