বাংলাদেশে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চান ওইসিডিভুক্ত ১৭ দেশের রাষ্ট্রদূত

OECDOECDউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: গণতন্ত্র ও ধর্মনিরপেক্ষতার মূল্যবোধ সুসংহত রাখতে বাংলাদেশে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন আয়োজনের ওপর জোর দিয়েছেন অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও উন্নয়ন সংস্থাভুক্ত (ওইসিডি) ১৭টি দেশের রাষ্ট্রদূতগণ।

৫ জুন বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আনক্লস সম্মেলন কক্ষে বিদেশী কূটনীতিকদের উদ্দেশ্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনির ব্রিফিং অনুষ্ঠানে তারা এ মত প্রকাশ করেন।
আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তির্পূণ করতে তারা সব ধরনের সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত বলেও জানিয়েছেন।

কূটনীতিকদের জন্য আয়োজিত ধারাবাহিক তিনদিনের ব্রিফিংয়ের দ্বিতীয় দিন ছিল গতকাল বুধবার। ওইসিডিভুক্ত উত্তর আমেরিকা, ইউরোপ এবং এশিয়ার বিভিন্ন দেশ ও সংস্থার ১৭ জন রাষ্ট্রদূত ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন।

ব্রিফিংয়ে ওইসিডিভুক্ত রাষ্ট্রদূতরা আশা প্রকাশ করে বলেন, বাংলাদেশের বৃহত্তম ব্যবসায়িক ও উন্নয়ন অংশীদার হিসাবে ওইসিডিভুক্ত দেশগুলো চায় এদেশে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হোক। বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও ধর্ম নিরপেক্ষতার মূল্যবোধ যেনো সুসংহত থাকে এবং বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে একটি শক্তিশালী দেশে পরিণত হয়।

ব্রিফিংয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার গত সপ্তাহে ব্রাসেলস সফরের কথা তুলে ধরে জানান, বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পের জন্য শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার এবং শ্রমমান উন্নয়নে তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়ন প্রতিনিধিদের সহযোগিতা চেয়েছেন। তিনি জানান, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ট্রেড কমিশনার ক্যারেণ ডি গুখট্, ইউরোপীয় ইউনিয়নের শীর্ষ প্রতিনিধি ক্যাথেরিন এ্যাস্টন এবং যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতি বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি ওয়েন্ডি আর শারম্যান আশ্বস্ত করেছেন, শ্রমিক অধিকার রক্ষায় এবং তৈরি পোশাক শিল্প খাতের উন্নয়নে তারা সব ধরনের সহযোগিতা করবেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী সে সময় তৈরি পোশাক শিল্প খাত, শ্রমিক সংগঠন, আর্ন্তজাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) সঙ্গে সমন্বিতভাবে কর্ম পরিবেশ উন্নয়ন, নিরাপত্তা, শ্রমিকদের অধিকার আদায়ে সোচ্চার হওয়া এবং তৈরি পোশাক শিল্প খাতের মজুরি নিয়ে সরকারের শ্রম আইন সংশোধনসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণের কথাও তুলে ধরেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাম্প্রতিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়েও কথা বলেন। কূটনীতিকদের তিনি জানান, অন্তর্বর্তী সরকার ও আগামী জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি বিষয়ে আলোচনার জন্য সরকার বিরোধী দলের সঙ্গে সংসদের ভেতরে বা বাইরে সংলাপে বসার আহবান জানিয়েছে। এছাড়া সম্প্রতি সংখ্যালঘুদের ওপর হামলার ঘটনার কথাও তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

রাজনৈতিক সহিংসতা বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী কূটনীতিকদের জানান, রাজনীতির শীর্ষ পর্যায় থেকে বা অন্যভাবে যে রুপেই সহিংসতা হোক না কেন বর্তমান সরকার এর তীব্র নিন্দা জানায়।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.