‘ব্রাজুকা’ খেলবে বিশ্বকাপে

W.Cup football

উইমেন চ্যাপ্টার: ২০১৪ সালের বিশ্বকাপের জন্য ফুটবলের মোড়ক উন্মোচন করেছে বিশ্বখ্যাত কোম্পানি অ্যাডিডাস। আর্জেন্টিনার মেসি এবং ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর কাছ থেকে চূড়ান্ত অনুমোদন নিয়েই অ্যাডিডাস ‘ব্রাজুকা’ নামের এই ফুটবলটি সবার সামনে তুলে ধরে। ২০১৪ সালে ব্রাজিলে অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপে এই ফুটবলটিই ব্যবহার করা হবে।

দক্ষিণ আমেরিকান কোম্পানি পরিচালিত এক জরিপ অনুযায়ী ফুটবলের নাম চূড়ান্ত করা হয়েছে। যার অনানুষ্ঠানিক অর্থ হচ্ছে ‘ব্রাজিলিয়ান’। প্রায় আড়াই বছর ধরে অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং লাইওনেল মেসি, বাস্তিয়ান শভেইনস্টেইগার এবং জিনেদিন জিদানকে দিয়ে ‘ব্রাজুকা’ খেলানো হয়েছে। এছাড়া কিছুটা ভিন্ন ডিজাইনে অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপেও বলটি খেলানো হয়েছে।

বার্সেলোনা তারকা মেসি বলটি সম্পর্কে বলেন, ‘বলটি সম্পর্কে আমার প্রথম ইমপ্রেশানই ছিল খুব ভাল। ডিজাইনটি একটু ভিন্ন, অনেক রংয়ের সমাহার, আর আমার সুযোগও হয়েছে ব্রাজুকা নিয়ে খেলার। এটা সত্যিই চমৎকার একটা বল’।

রিয়াল মাদ্রিদ এবং স্পেনের গোলকিপার ইলকার ক্যাসিলাস বলেছেন, ‘ব্রাজুকার ডিজাইন অসাধারণ, এবং এতে ব্রাজিলের প্রতিফলন আছে একশভাগ। বলটির মোড়ক উন্মোচনের পর এখন সত্যিই মনে হচ্ছে যে, বিশ্বকাপের সময় ঘনিয়ে এসেছে, খুব কাছে চলে এসেছে। বিখ্যাত এই বলটি দিয়ে ব্রাজিলে খেলার অপেক্ষায় রইলাম। আশা করছি ২০১০ এর মতোই একই ফলাফল আমরা পাবো নতুন এই বল ‘ব্রাজুকা’ দিয়েও’।

বার্সেলোনা এবং ব্রাজিলের তারকা ড্যানি আলভেস বলেন, ‘ব্রাজুকা সম্পর্কে আমার প্রথম অনুভূতিই হচ্ছে, এটা ফ্যান্টাসটিক এবং এর মাধ্যমে আমরা অনেক আনন্দ উপভোগ করতে যাচ্ছি বিশ্বকাপে। অ্যাডিডাস সত্যিই অবিশ্বাস্য সুন্দর একটা বল তৈরি করেছে, যা কিনা বিশ্বকাপের মতোই পুরো টুর্নামেন্টটির প্রতিনিধিত্ব করবে’। তিনি আরও বলেন, ‘মাঠেও এর পারফরমেন্স অসাধারণ, একে নিয়ে খেলার মজাই আলাদা, শূন্যেও এটি খেলে ভাল। আমার বিশ্বাস যে, সব খেলোয়াড়েরই এটি পছন্দ হবে। বলটি আমার উত্তেজনা আরও অনেক গুণ বাড়িয়ে দিয়েছে এবং বিশ্বাস করুন, আমি এখন শুধুই খেলা শুরুর অপেক্ষায় আছি’।

 

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.