লন্ডনে ৩০ বছর ধরে আটক ৩ নারী উদ্ধার

London policeউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: লন্ডনের একটি বাড়ি থেকে তিনজন নারীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। ব্রিটিশ পুলিশের ভাষ্যমতে, তিনজনকে গত  ৩০ বছর ধরে ঐ বাড়িতে আটকে রাখা হয়েছিল।

ব্রিটেন, আয়ারল্যান্ড ও মালয়েশিয়ার নাগরিক ঐ নারীদের বয়স ৩০ থেকে ৬৯ এর মধ্যে এবং তাদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে তিনজন নারীই মানসিক সমস্যায় আক্রান্ত বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এ ঘটনায় ষাটোর্ধ্ব একজন ব্যক্তি ও তার স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছে।

পুলিশ বলছে , গত মাসে ফ্রিডম চ্যারিটি নামে একটি প্রতিষ্ঠানে একজন নারীর টেলিফোন আসে এবং তিনি জানান যে কয়েক দশক ধরে ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাকে একটি বাড়িতে কাজ করতে হচ্ছে।

এরপর ফ্রিডম চ্যারিটি থেকে পুলিশের সাথে যোগাযোগ করা হলে পুলিশ তাদের উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে।

পুলিশ বলছে তারা ৩০ বছর ধরে একপ্রকার দাসত্বের জীবযাপন করেছে এবং এখন তাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার জন্য কাজ করছে কর্মকর্তারা।

পুলিশ আরো জানাচ্ছে যে তারা উদ্ধারকৃত এই তিনজন নারীর মধ্যে সম্পর্কও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

মেট্রোপলিটন পুলিশের মানব পাচার বিভাগের গোয়েন্দা কর্মকর্তা কেভিন হাইল্যান্ড এই ঘটনাকে বিরল একটি ঘটনা বলে উল্লেখ করেন।

মিঃ হাইল্যান্ড বলেন, এই তিনজন নারীকে খুব তাড়াতাড়িই ছেড়ে দেয়া হবে।

ঘটনা প্রসঙ্গে তিনি বলছিলেন, “ আমাদের খুব সতর্কতার সাথে কাজ করতে হয়েছে। এরা তীব্র মানসিক রোগে ভুগছে। এবং প্রকৃত ঘটনা তুলে ধরাটা খুবই কষ্টকর ছিল। তবে আমরা তা করতে পেরেছি ”।

পুলিশ কর্মকর্তারা জানাচ্ছেন, যৌন নির্যাতনের কোন প্রমাণ তারা পাননি।

ফ্রিডম চ্যারিটির করা ‘জোরপূর্বক বিয়ে’ নিয়ে একটি টেলিভিশন ডকুমেন্টারি দেখার পরই ঘটনার শিকার আইরিশ নারীটি সংস্থায় ফোন দিয়ে সাহায্য চায় ও তাদের উদ্ধার করতে বলে।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.