ফের শ্রমিক বিক্ষোভ, কারাখানা বন্ধ

savar,+garments+pic-2উইমেন চ্যাপ্টার: চলতি মাসেই বর্ধিত মজুরি পরিশোধের দাবিতে গাজীপুর, টঙ্গী ও আশুলিয়ায় আজ আবারও বিক্ষোভ করছেন শ্রমিকরা। সকালে এ ঘটনায় পুলিশের সাথে শ্রমিকদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ, টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে।

শিল্প পুলিশ-১ আশুলিয়া জোনের পরিদর্শক আব্দুস সাত্তার জানান, টঙ্গীর সাতাইশ ও গাজীপুরা এলাকায় আজ রোববার সকালে নতুন করে শ্রমিক-অসন্তোষ দেখা দেওয়ায় ওই এলাকার কমপক্ষে ৫০টি পোশাক কারখানা আজকের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শ্রমিকরা ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করে যানবাহন ভাংচুর করেছে।

গাজীপুরের কোনাবাড়ি ও কাশিমপুর এলাকার কয়েকটি স্যুয়েটার কারখানার শ্রমিকরাও ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধে করে এবং ভাংচুর চালায়। সেখানেও অধিকাংশ কারখানায় পরে ছুটি ঘোষণা করা হয় বলে জয়দেবপুর ও কোনাবাড়ি থানা পুলিশ জানায়।

দুই জায়গাতেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশকে রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়তে হয়েছে। সংঘর্ষে আশুলিয়ায় শ্রমিক, পুলিশ ও পথচারীসহ অর্ধশতাধিক এবং গাজীপুরে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী, শ্রমিক ও পুলিশ সূত্র জানায়, সকাল নয়টার দিকে সাতাইশ এলাকায় অবস্থিত মাসকো গ্রুপের শ্রমিকেরা বর্ধিত হারে চলতি মাসেই বেতন দেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করেন। কর্তৃপক্ষ এই দাবি মানতে অস্বীকৃতি জানালে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ শুরু করেন শ্রমিকেরা। অপরদিকে একই এলাকার কয়েকটি সোয়েটার কারখানার শ্রমিকেরাও মজুরি বাড়ানোর দাবিতে রাস্তায় নেমে আসেন।

অপ্রীতিকর ঘটনার আশঙ্কায় সাতাইশ ও গাজীপুরা এলাকার কমপক্ষে ৫০টি কারখানায় আজ ছুটি ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ।

এদিকে সাতাইশ এলাকায় অবস্থিত ভিয়েনা টেক্স কারখানার শ্রমিকেরা কাজ বন্ধ রাখতে অস্বীকৃতি জানালে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের সঙ্গে তাঁদের সংঘর্ষ বাধে। এতে অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। এ ছাড়া বিক্ষুব্ধ শ্রমিকেরা ওই কারখানার ভেতরে ঢুকে ভাঙচুর চালান।

খবর পেয়ে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.