শচীন, উই উইল মিস ইউ

Shachinউইমেন চ্যাপ্টার: ক্রিকেট জীবনের শেষ টেস্টে ৭৪ রান। এটাই লেখা হয়ে থাকবে ইতিহাসে। শতরান হলেও হতে পারতো। হলে আকাশসম রেকর্ডের ভার আরেকটু বাড়তো, এইটুকুই। আর ওয়েস্ট ইন্ডিজ যদি এক ইনিংস এবং ১২৬ রানে হেরে না যেতো, তবে এই টেস্টেই হয়তো তিনি আরেকবার মাঠে নামতে পারতেন, হয়তো কোটি কোটি দর্শক আরেকবার তাদের প্রিয় মানুষটিকে ব্যাট হাতে মাঠে দেখতে পারতেন, কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজ হেরে গিয়ে সেই সম্ভাবনাটুকুও শেষ করে দিল।

লিটল মাস্টার শচীন টেন্ডুলকারের শেষ টেস্টের পর্দা টানা হয়ে গেছে। তবে এই টেস্টে ভারতকে এক বিশাল জয় এনে দিয়েছে, সেদিক দিয়েও কম গুরুত্বপূর্ণ নয় খেলাটি। মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়েতে তৃতীয় সকালেই চূর্ণ-বিচূর্ণ হয়ে গেছে ইন্ডিজদের দুর্গ।

আর কোনো দিন ব্যাট হাতে প্রতিপক্ষকে ‘খুন’ করতে দেখা যাবে না কিংবদন্তিকে, আর কোনো দিন ‘লিটল মাস্টার’-এর ব্যাটিং-সুধা মোহগ্রস্ত করবে না ক্রিকেটপ্রেমীদের। ক্রিকেটের ইতিহাসে শচীন টেন্ডুলকার আজ থেকে অতীত।

India v West Indies 2nd Test Day 2খুব স্বাভাবিকভাবেই ক্রিকেটকে বিদায় দিলেন শচীন টেন্ডুলকার। খেলা শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে হাতে তুলে নিলেন একটা স্টাম্প।  চোখ ছলছল চোখে শেষবারের মতোন হেঁটে গেলেন মাঠ দিয়ে, এতোদিনের সতীর্থরাও তাঁকে সম্মান জানাতে এতোটুকু কার্পণ্য করেননি। তাদের গার্ড অব অনারের ছায়ায় ধীরে ধীরে ফিরলেন প্যাভিলিয়নে। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে দিলের আবেগঘন এক বক্তৃতা। সেই বক্তৃতা কাঁদাল তাবৎ ক্রিকেটপ্রেমীকে।

দর্শকভর্তি গ্যালারি বিদায় জানালো কিংবদন্তীতুল্য প্রিয় এই ক্রিকেটারকে। ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামের দর্শকদের গগনবিদারী স্লোগান যেন টেন্ডুলকারের বিদায়ী হাহাকার ছড়িয়ে দিল গোটা ক্রিকেট বিশ্বেই।

কী মহান সেই দৃশ্য! যে না দেখেছে, সে বিশ্বাসই করতে পারবে না, কতটা ভালবাসলেই এই সম্মান দেখানো যায়। জীবিত অবস্থায় কয়জনই বা পায় এই সম্মান! কিন্তু শচীন পেয়েছেন। ঝুলিভর্তি রেকর্ড যার সংগ্রহে, কোটি মানুষের ভালবাসা আর সম্মান যার পাথেয়, তিনি নিশ্চয়ই আর ১০টা সাধারণ মানুষ থেকে কিছুটা আলাদাই।

স্যালুট শচীন, ক্রিকেট তোমাকে মিস করবে, আর মিস করবে এই প্রজন্ম।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.