সংসদে দুই দলের উদ্যোগ চান স্পিকার

Speaker+NY
ছবি: বিডিনিউজ

উইমেন চ্যাপ্টার: নির্বাচন নিয়ে সৃষ্ট অচলাবস্থা নিরসনে সংসদের চলতি অধিবেশনেই বিধি অনুযায়ী সরকার ও বিরোধী দলের কাছ থেকে আলোচনার প্রস্তাব চেয়েছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

তিনি বলেছেন, “সংকটের অবসানে চলতি জাতীয় সংসদ অধিবেশনেই সংবিধান ও কার্যপ্রণালী বিধি অনুযায়ী আলোচনা করতে চাই। “তবে সরকারি দল ও বিরোধী দলের সকলে সংসদ অধিবেশনে উপস্থিত হয়ে এই বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করলেই কেবল তা সম্ভব হবে।”

বৃহস্পতিবার বিকালে যুক্তরাষ্ট্রের নিউউয়র্কে প্রবাসী বাংলাদেশি কম্যুনিটির নেতাদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন স্পিকার।

শিরীন শারমিন বলেন, বাংলাদেশের মানুষ গণতন্ত্রে বিশ্বাসী। দেশে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা যাতে ব্যাহত না হয় আপামর জনসাধারণ তাই প্রত্যাশা করেন।

বাংলাদেশের সাম্প্রতিক উন্নয়ন-অগ্রগতির চিত্র আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে আরো ভাল করে তুলে ধরতে উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি।

স্পিকার বলেন,  গত নির্বাচনে মহাজোটের অঙ্গীকার অনুযায়ী একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচার চলছে এবং তা আইন অনুযায়ী হচ্ছে।

এসময় একজন প্রবাসী হরতাল নিষিদ্ধ করতে আইন করা জরুরি বলে মন্তব্য করেন।

তার জবাবে স্পিকার জানান, সবকিছুই নির্ভর করছে সংসদ সদস্যদের ওপর। তারা চাইলে হরতাল নিষিদ্ধে আইন করাও সম্ভব।

জাতিসংঘের বাংলাদেশ মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এই সভায় স্পিকারের সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা ও সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী এবং জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি এ কে এ মোমেন।

সংসদের স্পিকার হিসেবে শিরীন শারমিন চৌধুরীর এটাই প্রথম নিউইয়র্ক সফর। প্রথম নারী স্পিকার হিসেবে বিচক্ষণ নেতৃত্ব দেওয়ার স্বীকৃতিস্বরূপ তাকে সম্মাননা দিয়েছে ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব উইম্যান অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট দিলারা খান।জাতিসংঘের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষাতের জন্যে ১৫ সদস্যের বৃটিশ বাংলাদেশি চেম্বারের একটি প্রতিনিধি দল বর্তমানে নিউইয়র্কে রয়েছেন।

আন্তঃসংসদীয় ইউনিয়নের শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে ১২ নভেম্বর নিউইয়র্কে পৌঁছেন স্পিকার। বিভিন্ন দেশের নারী স্পিকারদের একটি সম্মেলনেও অংশ নেন তিনি।

সূত্র: বিডিনিউজটোয়েন্টিফোরডটকম

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.