আরাফাতের মৃত্যুর পেছনে ইসরাইলের হাত

Yasir Arafatউইমেন চ্যাপ্টার: ফিলিস্তিনের কিংবদন্তীতুল্য নেতা ইয়াসির আরাফাতের স্বাভাবিক মৃত্যু হয়নি এবং এর পেছনে ইসরায়েলের হাত ছিল বলে সন্দেহ করছে ফিলিস্তিনি এক তদন্ত কমিটি। তারা বলছে, সঠিক তদন্ত করলেই আসল সত্য বেরিয়ে আসবে। এবং তারা এটা করতে বদ্ধপরিকর।

ইয়াসির আরাফাতের মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে গঠিত কমিটির প্রধান বলেছেন, বার্ধক্য বা ভগ্ন স্বাস্থ্যের জন্য যে তাঁর মৃত্যু হয়নি, তদন্তে তার প্রমাণ মিলেছে। এর আগে সুইজারল্যান্ডের এক তদন্ত রিপোর্টে বলা হয়েছিলো যে, কবর থেকে তোলার পর আরাফাতের দেহে স্বাভাবিকের চাইতে অনেক বেশি তেজষ্ক্রিয় পদার্থের উপস্থিতি পাওয়া যায়।

তবে ইসরায়েল এ ব্যাপারে তাদের জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে।

তদন্তকারী কমিটি বলেছে, পুরোপুরি সত্য না জানা পর্যন্ত ওই ঘটনা নিয়ে আরো অনুসন্ধান চালানো হবে।

রামাল্লায় কমিটির প্রধান তওফিক তিরাবী এক সংবাদ সম্মেলনে এই মৃত্যুকে অ্যাসাসিনেশন বা হত্যাকাণ্ড বলে আখ্যায়িত করেন।

তওফিক তিরাবি বলেন, তদন্ত করলে ইসরায়েলের জড়িত থাকার ব্যাপারটি প্রমাণিত হবে বলেই তিনি বিশ্বাস করেন।

“আরাফাতকে হত্যার জন্য পোলোনিয়াম না অন্য কিছু ব্যবহার করা হয়েছিল এবং তার কারণেই ইয়াসির আরাফাত মারা গেছেন কিনা – নাকি অন্য কোন কারণে – তা আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ নয়। সিকিউরিটি এবং মেডিক্যাল কমিশনের একজন সদস্য হিসেবে আমার কাছে যে তথ্য আছে তার ভিত্তিতে বলছি, ইয়াসির আরাফাতকে হত্যা করা হয়েছে এবং ইসরায়েলই তাকে হত্যা করেছে।”

তিনি আরও বলেন, “আমি এ কথা বানিয়ে বলছি না। এটা এরিয়েল শ্যারন আর শাওল মোফাজের মতো ইসরাইলি নেতাদের টেলিফোন আলাপেও শোনা গেছে – তারা সেসময় বলেছে যে আরাফাতকে যেতে হবে। এগুলো আমার কথা নয়। আমি আবার বলছি আরাফাতের রক্তের জন্য ইসরায়েলই দায়ী।”

তবে আরাফাতের স্ত্রী সুহা আরাফাত বলেছেন, তিনি সরাসরি কাউকে অভিযুক্ত করতে চান না, কারণ পৃথিবীতে তাঁর বহু শত্রু রয়েছে।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.