মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের অনুদান পেলেন ৫ বাংলাদেশী

Montyউইমেন চ্যাপ্টার: দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকার কূটনৈতিক প্রতিবেদক আঙ্গুর নাহার মন্টিসহ মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের বিনিময় কর্মসূচির (এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রাম) পাঁচ জন বাংলাদেশী অ্যালামনাই চলতি বছর অ্যালামনাই অনুদান প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে দূতাবাসের এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়। গতকাল সকালে ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের আমেরিকান সেন্টার ওই পাঁচ বিজয়ীকে গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন। এ সময় আমেরিকান সেন্টারের পরিচালক ভিরাজ লেবেইলি, তথ্য ও গণমাধ্যম কর্মকর্তা কেলি এস ম্যাকার্থি, সংস্কৃতি বিষয়ক কর্মকর্তা বিলাল ফারুকী এবং অ্যালামনাই সমন্বয়ক কাজী এম সাবির আমানউলাহ উপস্থিত ছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস জানায়, বাংলাদেশী স্টেট অ্যালামনাইরা চলতি ২০১৩ সালে তৃতীয় বছরের মতো ‘গ্লোবাল অ্যালামনাই এনগেজমেন্ট ইনোভেশন ফান্ড (এইআইএফ)’ প্রতিযোগিতায় অনুদানের জন্য আবেদন করেন। ১১৯টি দেশের ৬৮১টি প্রস্তাবের মধ্যে বাংলাদেশের দুটি প্রস্তাব নির্বাচিত হয়। ইন্টারন্যাশনাল ভিজিটর লিডারশিপ প্রোগ্রাম (আইভিএলপি) অ্যালামনাস নাজমুল আলমকে সুন্দরবন সংরক্ষণে ‘কনজারভেশন থ্রু ইকো-ট্যুরিজম’ এবং স্টাডি অব দ্য ইউএস ইনস্টিটিউট (এসইউএসআই) অ্যালামনাস নাতাশা কবিরকে ‘আইটি এডুকেশন ফর দ্য ডিফারেন্টলি অ্যাবলেড’ প্রকল্পের জন্য অনুদান দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া ২০১৩ সালের আমেরিকান সেন্টার অ্যালামনাই স্মল গ্র্যান্টস কমপিটিশনে হুবার্ট এইচ হামফ্রে ফেলো অ্যালামনাস দৈনিক ভোরের কাগজের কূটনৈতিক প্রতিবেদক আঙ্গুর নাহার মন্টি ‘মোটিভেশনাল এন্ড ব্রিজিং প্রোগ্রাম ফর জার্নালিস্ট’, নিকট প্রাচ্য এবং দক্ষিণ এশিয়া (এনইএসএ) আন্ডার গ্র্যাজুয়েট এক্সচেঞ্জ কর্মসূচির অ্যালামনাস আবু সাহেদ ইমন ‘ফিল্ম ফর ফ্রিডম’ এবং ইংলিশ অ্যাক্সেস মাইক্রো-স্কলারশিপ প্রোগ্রাম (ইএএমপি) অ্যালামনাস মুহাম্মদ ফেরদৌস ‘ফার্স্ট রেসপন্ডিং ট্রেনিং’ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য অনুদান পেয়েছেন।

অনুষ্ঠানে ভিরাজ লিবেইলি বিজয়ীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, আজ পাঁচটি প্রকল্প উদযাপনের সময়। বিজয়ীরা প্রকল্পগুলোর মাধ্যমে নিজ নিজ অঙ্গনের প্রতি তাদের অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন। প্রস্তাবিত প্রকল্পগুলোর প্রশংসা করে তিনি বলেন, বিজয়ীদের প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে সহযোগিতা করতে পেরে আমেরিকান সেন্টার আনন্দিত। আমরা এই প্রকল্পগুলোর সাফল্য দেখতে চাই। এক্ষেত্রে আমরা একসঙ্গে কাজ করবো।

সূত্র: ভোরের কাগজ।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.