আজ মর্যাদার লড়াই

Bangladesh_cricket_teamউইমেন চ্যাপ্টার: ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া, ভারত-পাকিস্তানের পর ক্রিকেটে আরও দুটি চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী জাতির আবির্ভাব ঘটেছে। বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড খেলা এখন এমনই একটি লড়াইয়ের নাম। মূলত ২০১০ সালে ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ডকে ৪-০ তে হোয়াইটওয়াশ করে বাংলাদেশ নিজেদের আগমনের বার্তা দিয়েছিলো। এরপর বাংলাদেশ ধারাবাহিকভাবেই জিতেছে অনেক একদিনে আন্তর্জাতিক ম্যাচ। শ্রীলঙ্কার মাঠে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে বিদেশের মাটিতে প্রথম সিরিজ ড্র করেছে। গেল বছর এশিয়া কাপে বাংলাদেশ রানার্স আপ হয়েছে। হেরেও হয়েছে সারাবিশ্বের “পিপলস চ্যাম্পিয়ন”। তবুও নিন্দুকদের কথা থেমে নেই। অনেকেই তখনও বলেছে বাংলাদেশ এশিয়া কাপে “এক্সিডেন্টলি” ভালো খেলেছে। আর নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৪-০ তে জেতাটাকেও যতটা বাংলাদেশের ভালো খেলা বলেছেন তার থেকে বেশি নিউজিল্যান্ডের খারাপ খেলাকে দুষেছেন। আবার অনেকে টেনেছেন টেস্ট খেলার প্রসঙ্গও। বলেছেন ওয়ানডেতে “কিছুটা” উন্নতি করলেও টেস্টে বাংলাদেশ একেবারেই শশু এখনও। বার বার প্রশ্ন তুলেছে বাংলাদেশের টেস্ট স্টাটাস নিয়েও।

আসলে বাংলাদেশকে নিজেদের অবস্থান জানান দেয়ার জন্য নিজেদের সামর্থ্য দুইবার প্রমাণ করতে হয়। নইলে ওই অতীত ক্রিকেটের বড় বড় নামগুলো সন্তুষ্ট হতে পারেনা।

তবে, বাঘের জাত বাঙ্গালি। প্রমাণ করার দরকার পড়লেই নিজের সমস্তটুকুই উজাড় করে দিয়ে প্রমাণ করেছে নিজেকে। এবারও ব্যতিক্রম হলোনা। নিউজিল্যান্ডকে আগের হোয়াইটওয়াশের কৃতিত্ব নিজেদের প্রমাণ করতে এই সিরিজটি জেতা আবশ্যিক হয়ে উঠেছিলো। মর্যাদার লড়াইয়ে পরিনত হয়েছিলো এই সিরিজ। তার প্রস্তুতিও ছিলো অনেক কঠোর। সামর্থ্যের সর্বোচ্চ পরিশ্রম করেছে খেলোয়াড়রা। তাইতো মিলেছে জয়ের পর জয়।

মর্যাদার এই লড়াইয়ে এখন পর্যন্ত টেস্ট ও ওয়ানডে মিলিয়ে ৪ ম্যাচ বাংলাদেশ অপরাজিত। দুটি টেস্টেই অসাধারণ খেলে ড্র করেছে। আর দ্বিতীয় টেস্টতো এমনভাবে ড্র হয়েছে যেন নিন্দুকেরাও বলে উঠে “বৃষ্টির সহায়তায় সিরিজ ড্র করেছে নিউজিল্যান্ড”। আর একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে? বাংলাদেশ নিজেদের মাঠে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে টানা ৬ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড ধরে রেখেছে। দুটি ম্যাচেই নিউজিল্যান্ডকে কিছুক্ষণের জন্যেও ম্যাচে আসতে দেয়নি টাইগাররা। প্রতাপের সাথে জিতেছে দুটি ওয়ানডে ম্যাচই।

তবে এবার সামনে আরও বড় চ্যালেঞ্জ। কারণ নিউজিল্যান্ডের সাথে লড়াইটা এখন আর হার ও জিতের নেই। এখন লড়াইটা মর্যাদার। তাই নিজেদের অপরাজেয় রখার জন্য মরিয়া টাইগাররা। আজ ফতুল্লায় বাংলাদেশ নামবে টানা ৭টি ম্যাচ জয়ের লক্ষ্যে। আর নিউজিল্যান্ড পরাজয়কে আর দীর্ঘ হওয়া থেকে বাঁচাতে।

বাংলাদেশ সময় সকাল সোয়া ৯টায় শুরু হবে বাংলাদেশের আরেকটি মর্যাদার লড়াই। তবে এবার হবেতো ৭-০? মাশরাফির কণ্ঠে অবশ্য ন্যূনতম ছাড় না দেয়ার হুংকার। দীর্ঘদিন পর দলে ফিরেছেন। ফেরাটাও হয়েছে মাশরাফির মতই। তিনি বলেন, নিউজিল্যান্ডের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। এখন তারা মরিয়া হয়েই লড়াই করবে। সুতরাং লড়াইটা খুব সহজ হবেনা। আমরা আমাদের আগের ম্যাচের ভুলগুলো শুধরে আরও ভালো খেলার চেষ্ঠা করবো।

অবশ্যই মাশরাফি, আজ শুধু তোমারা ১১ জন নও। ১৬ কোটি বাঙ্গালি নামবে ফতুল্লায়। শুধুমাত্র আরও একটি জয়ের জন্য। আরও একবার বাংলাওয়াশ করার স্বপ্ন নিয়ে। জয়ের ব্যবধান ৭-০ করার লক্ষ্যে।

এগিয়ে যাও টাইগার্স, সারা বাংলাদেশ তোমাদের দিকে তাকিয়ে…

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.