অবশেষে এলো সেই কাঙ্খিত ফোন

Khaleda-Hasinaউইমেন চ্যাপ্টার: শনিবার সন্ধ্যায় ছয়টার কিছুক্ষণ পর নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা নিয়ে বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়াকে সংলাপে বসার জন্য আহ্বান জানিয়ে ফোন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি  আগামীকাল রোববার সন্ধ্যায় গণভবনে আলোচনায় বসার পাশাপাশি হরতাল প্রত্যাহারের জন্যও বিরোধী দলীয় নেতার প্রতি আহ্বান জানান বলে জানা গেছে।

দুই নেত্রীর মধ্যে ফোনালাপ নিয়ে ব্যাপক উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা ছিল সারাদিন জুড়েই। এর মধ্যে দুপুরে  প্রধানমন্ত্রী টেলিফোন করেও পাননি বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়াকে।

তাঁর বাসার ‘রেড’ ফোনটি বিকল হয়ে আছে জানিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী শামসুল রহমান শিমুল বিশ্বাস বলেছেন, ‘ম্যাডাম রাতে অফিসে যাবেন, সেখানেই ফোনের জন্য অপেক্ষা করবেন’।

পরে জানা যায়, সন্ধ্যা ৬টায় শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়ার এই টেলিসংলাপ হবে বলে বলে জানিয়েছেন তাদের সহযোগীরা। কিন্তু কে কল করবেন, সে বিষয়ে অস্পষ্টতা তখনো ছিল।

এর আগে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী (মিডিয়া) মাহবুবুল হক শাকিল জানান, “আজ  দুপুর সোয়া ১টা থেকে পৌনে ২টা পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী নিজে তার রেড টেলিফোনে বিরোধীদলীয় নেতাকে ট্রাই করেছেন। রাজনৈতিক সঙ্কটের আশঙ্কায় জনমনে উৎকণ্ঠার মধ্যে আলোচনার জন্য বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়ার বাসভবন ও রাজনৈতিক কার্যালয়ে ফোন করেন। কিন্তু তাঁকে পাওয়া যায়নি।

পরে খালেদা জিয়ার বিশেষ সহকারি শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসকে অনুরোধ করা হয়েছে বিরোধীদলীয় নেতার বাসায় গিয়ে তাঁকে বিষয়টি জানাতে।

খালেদা জিয়ার প্রেসসচিব মারুফ কামাল খানও সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব তাঁকে বলেছেন, তাঁরা ফোনে চেষ্টা করে বিরোধীদলীয় নেতার সঙ্গে কথা বলতে পারেননি। পরে প্রধানমন্ত্রীর ‘সাপোর্টিং স্টাফ’রা বিরোধীদলীয় নেতার বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

এদিকে এই ফোনালাপ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে ব্যাপক তোলপাড় চলে। সবাই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিলেন এই ফোনের। এ নিয়ে ব্যাঙ্গাত্মক স্ট্যাটাসও দেন অনেকে।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.