আসন্ন নির্বাচনে নারীদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ: প্রধানমন্ত্রী

Pm
ফাইল ছবি

উইমেন চ্যাপ্টার: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আগামী সাধারণ নির্বাচনে নারীদের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাদেরকে ভবিষ্যতে দেশের উন্নয়নসহ নিজেদের অগ্রগতি সম্পর্কে সজাগ থাকতে হবে।
প্রধানমন্ত্রী মঙ্গলবার গণভবনে জাতীয় মহিলা সংস্থার ব্যবস্থাপনা ও নির্বাহী কমিটি এবং সংস্থার বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা ইউনিটের চেয়ারম্যানদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন। খবর বাসসের।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকার সুবাদে নারীর উন্নয়নের পাশাপাশি দারিদ্র্য হ্রাস পাচ্ছে এবং তাদের অবস্থারও উন্নতি হচ্ছে।
‘একশ্রেণীর মানুষ ধর্মের নামে নারীর অগ্রগতি বন্ধ করতে চায়’ উল্লেখ করে শেখ হাসিনা গভীর দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, জঘন্য মনোবৃত্তি এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য তারা ইসলামের ভুল ব্যাখ্যা দিচ্ছেন।

আসন্ন নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে ভোট দিতে নারীদের প্রতি আহবান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অন্যথায় তাদের অগ্রগতি মারাত্মক বিপর্যয়ের মুখোমুখি হতে পারে।

অন্যান্যের মধ্যে মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি, একই মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ফজিলাতুন্নেছা ইন্দিরা ও জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান মমতাজ বেগম অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, একশ্রেণীর আলেম ইসলামের মূল চেতনা থেকে বিচ্যুৎ হয়ে নারী জাতির মুক্তির বিরুদ্ধে বক্তব্য দিচ্ছেন। কিন্তু ইসলামই হচ্ছে একমাত্র ধর্ম, যা সমাজ ও পরিবারে নারীর অধিকার সুরক্ষিত করেছে। তিনি বলেন, দেশের মোট জনসংখ্যার অর্ধেকই নারী হওয়ায় তাদের অবস্থার পরিবর্তন ছাড়া জাতির উন্নয়ন প্রহসনে পরিণত হবে।

‘যারা নারী অধিকারের বিপক্ষে কথা বলছেন প্রকৃতপক্ষে তারা ইসলামের চেতনা অনুধাবনে অক্ষম’ উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, মহানবী (সা.) সবার জন্য শিক্ষার নির্দেশ দিয়েছেন। এতে নারী-পুরুষের মধ্যে ভেদাভেদের কথা নেই। মুক্তিযুদ্ধে নারীর ত্যাগের কথা স্মরণ করে তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু সমাজে নারীর ভূমিকার কথা বিবেচনা করে দেশের সম্পদের সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও তাদের শিক্ষা অবৈতনিক করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু জাতীয় সংসদে নারীদের জন্য আসন সংরক্ষণের বিধান করেছিলেন। এ ছাড়াও তিনি তাদের সামাজিক ও রাজনৈতিক উন্নয়নে বহু বিশেষ কর্মসূচি নিয়েছিলেন।

‘তাঁর সরকারও বঙ্গবন্ধুর নীতি অনুসরণ করছে’ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের স্থানীয় সংস্থাগুলোতে নারীদের জন্য আসন সংরক্ষণের সিদ্ধান্ত তাদের রাজনৈতিক ক্ষমতায়নের পথে এক যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এ সিদ্ধান্ত ছাড়া তৃণমূল পর্যায়ে তাদের নেতৃত্ব গড়ে তোলার সুযোগ হতো না। তিনি বলেন, নারীরা এখন বেসামরিক প্রশাসন, বিচার বিভাগ ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার বিভিন্ন পর্যায় এবং অন্যান্য জাতীয় ক্ষেত্রে নেতৃত্ব দিচ্ছে।

নারীর কল্যাণে তাঁর সরকারের নেয়া বিভিন্ন কর্মসূচির কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, স্বাস্থ্যসেবা দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়া ছাড়াও তাদের অর্থনৈতিক অবস্থার উন্নয়নে বিভিন্নভাবে আর্থিক সহায়তা দেয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, সবাই জানে বিএনপি-জামায়াতের বিগত শাসন আমলে নারীদের কি ধরনের দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। আওয়ামী লীগ এই ভয়াবহ পরিস্থিতি থেকে দেশকে মুক্ত করে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত করেছে।

‘সরকারের উন্নয়ন কর্মসূচি এবং সাফল্য তুলে ধরার মাধ্যমে সাধারণ নারীদের সজাগ করার আহবান জানান শেখ হাসিনা।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.