পিলখানা হত্যাকাণ্ডের রায় ৩০ অক্টোবর

BGBউইমেন চ্যাপ্টার: ২০০৯ সালে তৎকালীন বিডিআর সদরদপ্তর পিলখানায় গণহত্যা মামলার রায় আগামী ৩০ অক্টোবর ঘোষণা করা হবে। গতকাল রোববার আসামি পক্ষের চূড়ান্ত যুক্তিতর্ক শেষে বিচারক ড. আখতারুজ্জামান রায়ের এই দিন ধার্য করেন।

সাক্ষ্য ও সাফাইসাক্ষ্য শেষে গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাষ্ট্রপক্ষ যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করে। পরে  নয়টি কার্যদিবসে আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করা হয়।

পিলখানায় হত্যা মামলায় আসামির সংখ্যা ৮৪৭ জন। এর মধ্যে বিএনপি নেতা নাসিরউদ্দিন পিন্টু, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও  সাবেক বিডিআর সদস্য তোরাব আলীও রয়েছেন।

রোববার যুক্তিতর্ক শেষে রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান আইনজীবি আনিসুল হক এবং আসামি পক্ষের আইনজীবীদের পক্ষে অ্যাডভোকেট আমিনুল ইসলাম আদালতের কাছে ন্যায় বিচার প্রার্থনা করেন। আদালত উভয়পক্ষকেই ন্যায় বিচারের আশ্বাস দেন।

নাসির উদ্দিন পিন্টুকে রাজনৈতিক কারণে আসামি করা হয়েছে বলে রোববারও অভিযোগ করেন আসামি পক্ষের আইনজীবীরা। তবে রাষ্ট্রপক্ষ তাৎক্ষণিকভাবে তা নাকচ করে দিয়ে বলেছে, তদন্তে তার সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে বলেই তাকে আসামি করা হয়েছে।

এ আদালতে ২০১১ সালের ৫ জানুয়ারি বিচার কার্যক্রম শুরু করেন বিচারক জহুরুল হক। বর্তমানে তার স্থলে বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান বিচারকাজ সম্পন্ন করেন

মন্ত্রী, সংসদসদস্য, সাবেক ও বর্তমান সেনা, নৌ, বিমান বাহিনীর কর্মকর্তা, পুলিশের সাবেক ও বর্তমান আইজি, বেসামরিক ব্যাক্তিসহ এ মামলার এক হাজার ৩৪৫ জন সাক্ষী ছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত ৬৫৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণের মধ্য দিয়ে জবানবন্দি গ্রহণ শেষ করা হয়।

এ দুইটি মামলায় ২০জন আসামি পলাতক রয়েছে। বিচার কার্যক্রম চলার সময়ে ডিএডি রহিমসহ চার আসামির মৃত্যু হয়েছে।

২০০৯ সালের ২৫-২৬ ফেব্রুয়ারি পিলখানায় বিডিআর সদরদপ্তরে বিদ্রোহের ঘটনায় ৫৭ সেনা কর্মকর্তাসহ অন্তত ৭০ জন নিহত হন।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.