মালালার উত্তরে নির্বাক প্রশ্নকর্তা

0

malaladailyshow-2উইমেন চ্যাপ্টার: “আমি এটা নিয়ে ভাবতে শুরু করেছিলাম, সবসময়ই ভাবতাম যে, তালেবান আসবে এবং আমাকে স্রেফ মেরে ফেলবে। কিন্তু তখন আমি নিজেকেই নিজে প্রশ্ন করলাম, যদি ওরা আসেই, তাহলে কি করবে তুমি মালালা? নিজেই উত্তর দেই, ‘মালালা, একটা জুতা নিয়ে ওদের দিকে ছুঁড়ে মারবে’। তখন আবার বললাম, ‘তুমি যদি জুতা দিয়ে ওদেরকে আঘাত কর, তাহলে তো তোমার সাথে ওদের কোন পার্থক্য থাকলো না। তোমাকে কোনমতেই অন্যদের সাথে এরকম নৃশংস আচরণ করা ঠিক হবে না, তোমাকে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে শান্তি, আলোচনা এবং শিক্ষার মাধ্যমে’। তখন আমি ভাবলাম, এমন যদি হয়ই, তবে ওদের বলবো শিক্ষা কতটা গুরুত্বপূর্ণ এবং আমি তোমার সন্তানের জন্যও একইভাবে শিক্ষা চাই। আমি ওই তালেবানকে বলবো, ‘আমি তোমাকে এটাই বলতে চেয়েছি, এখন তুমি নিজেই সিদ্ধান্ত নাও, কি করবে আমার সাথে’। কথাগুলো বলছিল পাকিস্তানের নারী শিক্ষা আন্দোলনের কর্মী মালালা ইউসুফজাই।

ডেইলি শো নামের এক অনুষ্ঠানে সাক্ষাতকার নিতে গিয়ে জন স্টুয়ার্ট তাকে প্রশ্ন করেছিলেন, মালালা যখন জানতে পারে যে, তালেবান জঙ্গিরা তাকে মারতে চাইছে, তখন তার প্রতিক্রিয়া কি ছিল। তারই উত্তরে মালালা একথা বলার পর স্তব্ধ হয়ে যান স্টুয়ার্ট। কিছুক্ষণ তিনি চুপ করে থাকেন। সাক্ষাতকারটি নেওয়া হয় ১১ অক্টোবর।

তালেবান জঙ্গিদের সমালোচনার জন্য ১৬ বছরের কিশোরী মালালা সহজেই তাদের রোষানলের শিকার হয়। গত বছর তার নিজ এলাকা সোয়াত উপত্যকায় জঙ্গিদের গুলিতে মারাত্মক আহত হয়। এরপর উন্নত চিকিত্সার জন্য তাকে ব্রিটেনে নিয়ে যাওয়া হলে নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে সেখানেই এখন পরিবারের সাথে বসবাস করছে মালালা।

নারী শিক্ষায় সোচ্চার ভূমিকার জন্য এবছর নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য ব্যাপকভাবে উচ্চারিত হচ্ছিল মালালা ইউসুফজাইয়ের নাম। এ প্রসঙ্গে এক সাক্ষাতকারে মালালা জানায়, এখনও সময় হয়নি এতোবড় সম্মানের জন্য।

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

লেখাটি ৪ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.