পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চায় মালালা

Malala-Yousafzai
ফাইল ছবি

উইমেন চ্যাপ্টার: পাকিস্তানের নারীশিক্ষা আন্দোলনের কর্মী মালালা ইউসুফজাই বলেছে, সে তার দেশের প্রধানমন্ত্রী হতে চায়। গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মালালা এমন অনুভূতির কথা জানিয়ে বলে, দেশের সর্বোচ্চ সেবা করতে চাই বলেই প্রধানমন্ত্রী হতে হবে আমাকে।

এবছর শান্তিতে নোবেল পাবে বলে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা মালালা বলে, শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পাওয়ার যোগ্য সে নয়। এরপরও এমন একটি গৌরবময় পুরস্কার পেলে তা তার জন্য ‘বিরাট সম্মানের’ ব্যাপার হতো। এর আগে মালালা এমন এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে বলেছিল ‘আমি যদি পুরস্কারটি পাই, তাহলে তা হবে বিরাট এক সম্মান। এমন পুরস্কারের জন্য আমি যোগ্য নই। এর পরও যদি পাই, তাহলে নারীশিক্ষা প্রচারণা শুরু করতে তা সহায়ক ভূমিকা রাখবে।’

সে চিকিৎসক নাকি রাজনীতিবিদ হওয়ার স্বপ্ন দেখে, এমন প্রশ্নের জবাবে মালালা বলে, ‘আমি মাতৃভূমির সেবা করতে চাই। এ জন্য পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখি। রাজনীতির মাধ্যমে আমার দেশকে রক্ষা করতে পারব। তখন শিক্ষা খাতে বাজেটের বড় একটা অংশ বরাদ্দ করতে সক্ষম হবো। এ ছাড়া পররাষ্ট্র বিষয়ে আরও মনোযোগ দিতে পারব।’

এদিকে তালেবান জঙ্গিদের হুমকির মুখে থাকা মালালার সাক্ষাতকার নেওয়ার সময় কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়। তালেবানের হুমকি সম্পর্কে মালালা বলে, ‘ওরা শুধু একটা শরীরকে গুলি করতে পারে, কিন্তু আমার স্বপ্নকে গুলি করতে পারবে না।’

পাকিস্তানের তালেবান জঙ্গিগোষ্ঠী সোয়াত উপত্যকায় কয়েক বছর আগে মেয়েদের শত শত স্কুল বন্ধ করে দেয়। প্রতিবাদে সোচ্চার হয় মালালা। এর জের ধরে গত বছরের ৯ অক্টোবর জঙ্গিরা মালালার মাথায় গুলি করে। এরপর তার উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে যুক্তরাজ্য নিয়ে যাওয়া হয়। এখন সেখানেই আছে মালালা।

কিছুদিন আগে জাতিসংঘ অধিবেশনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মালালা নারীশিক্ষার ওপর জোর দেওয়ার জন্য বিশ্ব নেতাদের প্রতি আহ্বান জানায়। পাশাপাশি সন্ত্রাস কবলিত দেশগুলোতে অস্ত্রের বদলে কলম পাঠাতেও অনুরোধ জানায় মালালা।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.