অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দিন

PMউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: শান্তি, উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারাবাহিকতা রাখতে আগামী নির্বাচনে আবারো নৌকা মার্কায় ভোট চাইলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, “আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশের উন্নয়ন হয়। শুধু খাদ্য শস্য নয়, তরি-তরকারি ও মাছের উৎপাদন বেড়েছে।”

তিনি তাঁর সরকারের আমলে বিভিন্ন উন্নয়নের কথা তুলে ধরে বলেন, ৯০ লাখ বেকার যুবককে চাকরি দেয়া হয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের হাতে বিনামূল্যে ১ কোটি ১৯ লাখ বই তুলে দেয়া হয়েছে।

ঝিনাইদহ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় গেলে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি হয়। তারা সন্ত্রাস, দুর্নীতি আর দুঃশাসন ছাড়া মানুষকে কিছুই দিতে পারে না।

এ সময় তিনি উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় আগামী নির্বাচনেও আওয়ামী লীগকে নির্বাচিত করার জন্য জনগণকে আহ্বান করেন।

“আর বিএনপি ক্ষমতায় এলে দেয় লাশ। হত্যা ও খুনের রাজনীতির মধ্য দিয়ে বিএনপির জন্ম হয়েছিল। তারা সন্ত্রাস, দুর্নীতি আর দুঃশাসন ছাড়া মানুষকে কিছুই দিতে পারে না।”

এদিকে, সরকারি কর্মসূচিতে গিয়ে ভোট চাওয়াকে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন বলে উল্লেখ করেছে বিএনপি। যদিও নির্বাচন কমিশন তা মনে করছে না।

২০০৮ সালে ঝিনাইদহের সবকটি আসলে আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করায় ঝিনাইদহবাসীকে অভিনন্দন জানান শেখ হাসিনা।

ঝিনাইদহের উন্নয়নে আওয়ামী লীগ সরকার কাজ করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “এক সময় ঝিনাইদহ সন্ত্রাসের জনপদ ছিল। আমরা ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে সন্ত্রাসমুক্ত করেছিলাম। ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার পর আবার সেই রক্তাক্ত জনপদ ফিরে আসে।”

হেফাজতকে সাথে নিয়ে বিএনপির অপপ্রচারের নিন্দা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারা কোরআন পুড়িয়ে ইসলাম হেফাজত করতে চায়। এদের কাছে ধর্ম বলে কিছু নাই।

জনসভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আব্দুল হাই। জনসভায় আরও বক্তব্য রাখেন টেলিযোগাযোগমন্ত্রী সাহারা খাতুন, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, শফিকুল ইসলাম এমপি, আব্দুল মান্নান এমপি, শফিকুল আজম খান এমপি সহ আরও অনেক স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় নেতারা।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.