আবারও সক্রিয় হুজি: বিপুল বিষ্ফোরক উদ্ধার

Hujiউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: যুদ্ধাপরাধীর বিচার বানচালের উদ্দেশ্যে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক ও অস্ত্র সহ নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন হরকাতুল জিহাদের চার নেতাকর্মীকে আটক করেছে র‌্যাব।

সাভারের আশুলিয়া থেকে সোমবার তাদের আটক করা হয়।

তাদের কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, ১১ শতাধিক এসএমজির গুলি, ৩২টি পিস্তলের গুলি, প্রায় তিন কেজি পাওয়ার জেল এক্সপ্লোসিভ, ৮টি ককটেল, একশ দশ গজ কর্ডেক্স, ডেটোনেটর এবং ব্লাস্টিং মেশিন উদ্ধার করা হয়েছে।

র‌্যাব সদর দফতরে সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাহিনীর লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক এটিএম হাবিবুর রহমান। তিনি সাংবাদিকদের জানান, ‘তামিরুত-আত-দ্বীন’ নামে নতুনভাবে সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে নিষিদ্ধ এই সংগঠনটি।

এ সময় চারজনের গ্রেপ্তারের বিষয়ে তিনি বিস্তারিত কথা বলেন। তিনি বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে প্রথমে সোমবার রাত দুইটার দিকে উত্তরার আবদুল্লাহপুর এলাকা থেকে হুজি সদস্য শরিফুজ্জামান ও মাকছুদুর রহমানকে আটক করা হয়। পরে তাদের তথ্যানুযায়ী আশুলিয়া ব্রিজ সংলগ্ন এলাকা থেকে বাকী দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। মো. খলিলুর রহমান ওরফে শাহরিয়ার ও মো. আব্দুল কাদের নামে ওই দুই জনের কাছে থেকে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক, অস্ত্র ও গুলি পাওয়া যায়। তারা টাঙ্গাইল থেকে বাসে আসছিলেন।

খলিলুর রহমান ২০০৫ সালের ১৭ অগাস্ট সিরিজ বোমা হামলার পলাতক আসামি।

হাবিবুর রহমান জানান, প্রাথমিকভাবে আটক চারজন জানান হুজির সামরিক শাখার প্রধান মাওলানা আব্দুর রউফ কাশিমপুর কারাগার থেকে পলাতক ও জামিনপ্রাপ্ত হুজি জঙ্গিদের পুনরায় সংগঠিত হওয়ার নির্দেশ দেন। তাই তারা ‘তামিরুত-আত-দ্বীন’ নামে দেশের বিভিন্ন জেলা সফর করে সংগঠনকে সক্রিয় করতে কাজ করছেন।

তিনি আরও বলেন, এদের আটকের মধ্য দিয়ে র‌্যাব আবারও জঙ্গি দমনে সফল হলো। তিনি জানান, এরা মূলত কাজ করে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে নূরানী মাদ্রাসার মাধ্যমে। ধর্মভীরু মানুষের কাছে গণতন্ত্র সম্পর্কে অপব্যাখা দিয়ে তারা সাংগঠনিক কাজ চালায়।

উদ্ধারকৃত বিস্ফোরক ও ডেটোনেটর ব্যবহার করে বড় ধরনের স্থাপনাও ধ্বংস করা সম্ভব।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.