শিশুদের স্বকীয়তা বিকাশে সহায়তা করুন

Pmউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: ‘নিশ্চিত হোক শিশুর অধিকার, কাটুক সকল অন্ধকার’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আজ পালিত হচ্ছে বিশ্ব শিশু দিবস।

দিবসটি উপলক্ষ্যে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে যোগদান করে শিশুদের অধিকার ও স্বকীয়তার রক্ষার বিষয়ে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, শিশুদের উপর অতিরিক্ত চাপ দিবেন না। অতিরিক্ত চাপ ও বকাঝকা শিশুদের স্বাভাবিক বিকাশকে বাধাগ্রস্থ করে। অভিবাবক ও শিক্ষকদের প্রতি তিনি আহ্বান করেন প্রতিটি শিশুরই স্বকীয়তা রয়েছে, তাদেরকে তাদের মত পড়তে দিন।

“সকলের প্রতি অনুরোধ থাকবে; তাদের (শিশু) একটু বুঝিয়ে বললে তারা শোনে। তারা সকলে একই রেজাল্ট করবে তা তো নয়। তারা সকলে এক হবে তাও নয়।”

মাত্রাতিরিক্ত শাসন সবসময় ভালো ফলাফল আনে না উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বেয়াড়াপনা করলে তো শাসন করতেই হবে। তবে অনবরত শাসন করা ঠিক না।”

এ সময় গৃহকর্মী শিশুদের প্রতি সকলকে নমনীয় হতে আহ্বান করেন তিনি। তিনি বলেন, “তারা তো আসে একটু খাদ্যের জন্য। তারা আর কতোই খাবে? আর প্রত্যেকে তো আপনাদের সন্তানের মতো।”

এ সময় প্রধানমন্ত্রী নিজের কাছে রেখে মানুষ করেছেন এমন তিন জনের কথা উল্লেখ করেন। তিনি জানান, তার কাছে থেকে তিন জন বড় হয়েছে। একজন মাস্টার্স পাস করে বিবিএস এর প্রস্ততি নিচ্ছে। আরেকজন লালমাটিয়া কলেজ থেকে ডিগ্রি পাস করেছে। তৃতীয়জন উন্মুক্ত বিদ্যালয়ে থেকে পড়ছে।

তিনি বলেন, “আমরা কথা হলো, তারা কাজ করতে আসে। আমি তো সারাজীবন থাকব না। তাদের তো ভবিষ্যত করে দিতে হবে।”

প্রধানমন্ত্রী এ সময় শিশুদের উন্নয়নে সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা বিস্তারিত তুলে ধরেন।
শিশুদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, শিশুরা আগামী দিনের নেত্রীত্ব।

“আমি তো নানী-দাদী হয়ে গেছি। আগামী দিনে মন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি হতে পারো- সেভাবে নিজেদের গড়ে তুলবে।”

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মহিলা ও শিশু মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকী। স্বাগত বক্তব্য দেন মন্ত্রণালয়ের সচিব তারিকুল ইসলাম।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.