২০% মহার্ঘ্য ভাতার ঘোষণা

PMউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য ২০% মহার্ঘ্য ভাতার ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দ্রুত সম্পন্ন করা, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষা, রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়ন ও পেশাজীবীদের অধিকার রক্ষার দাবিতে রাজধানীতে পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের এক সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, “আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি ২০% মহার্ঘ্য ভাতা দেব। এখানে সর্বনিম্ন দেড় হাজার টাকা ও সর্বোচ্চ ৬ হাজার টাকা বাড়বে।”

পূর্বঘোষিত পে কমিশনের সাথে এই মহার্ঘ্য ভাতার কোন সম্পর্ক নাই বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এ সময় তিনি সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের বেতন ধারাবাহিকভাবে বৃদ্ধির জন্য স্থায়ী কমিশন করে দেয়ার ইচ্ছাও প্রকাশ করেন।

প্রধানমন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধ সহ সকল আন্দোলন সংগ্রামে পেশাজীবীদের অবদানের কথা শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।

নারীদের কথা তিনি আলাদাভাবে স্মরণ করেন। নারীদের অগ্রগতিতে তাঁর সরকারের কাজের কথা উল্লেখ করে দিয়ে তিনি বলেন, নারীদের উন্নয়ন ছাড়া দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব নয়।

উগ্রবাদকে প্রশ্রয় দেয়ার জন্য বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, তেঁতুল তত্ত্ব দিয়ে নারীদের ঘরে ঢুকিয়ে দেয়ার চক্রান্ত করে হচ্ছে। বিএনপি ক্ষমতার এলে তেঁতুল তত্ত্ব বাস্তবায়ন হবে। নারীরদের ঘরে পাঠিয়ে দিবে।

তিনি বলেন, বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। ২০০৮ সালের নির্বাচনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে শান্তি ফিরে এসেছে। বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা সত্ত্বেও বাংলাদেশ জিডিপি ৬ ধরে রাখতে সমর্থ হয়েছে। যেখানে অনেক উন্নত রাষ্ট্রও তাদের জিডিপি ধরে রাখতে পারেনি।

এ সময় রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র বিষয়ে তিনি বলেন, আপনারা রামপাল ঘুরে আসুন। সুন্দরবনের কোন ক্ষতি আমরা হতে দিবোনা।

যুদ্ধাপরাধীর বিচারে বিরোধীদলের সকল ষড়যন্ত্রকে রুখে দিয়ে রায় কার্যকর করা হবেই। বাংলার মাটিতে যুদ্ধাপরাধীর বিচার হবেই বলে আবারও প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.