ভুল চিকিৎসায় চার নবজাতকের মৃত্যু

Tanglail-genarel-haspatalউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: টাঙ্গাইলে ভুল চিকিৎসায় চার নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সকাল সাড়ে ৯টা থেকে পৌনে ১১টার মধ্যে চারজনই টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে মারা যায়।

সামান্য ঠাণ্ডাজনিত কারণে হাসপাতালে আনা হলে ইনজেকশন পুশ করার কিছু সময়ের মধ্যেই এই চার নবজাতক মারা যায় বলে জানিয়েছে নবজাতকদের পরিবার।

সদর উপজেলার বিন্নাফৈর গ্রামের রিপন মিয়ার চারদিন বয়সী ছেলে, যাকে ঠাণ্ডা জনিত কারণে হাসপাতালে আনা হলে সকাল ৯টার দিকে একটি ইনজেকশান দেয়া হয়। অল্প সময়ের মধ্যেই শিশুটি চিৎকার করে মারা যায়। একই রকম ঘটনা হয়েছে সদর উপজেলার ছিটকিবাড়ি গ্রামের শাহজাহানের আট দিনের শিশুপুত্রের বেলায়ও।

বাকী দুইজন হলেন, অলোয়া গ্রামের লিটন মিয়ার নয় দিনের শিশু সন্তান এবং দশ দিনের অন্য এক ছেলে শিশু।

নিহত শিশুদের অভিবাবকরা জানান, হাসপাতালে আনার পর ডাক্তাররা শিশুদের সিডোব্যাগ নামের ইনজেকশান পুশ করলে পনের মিনিটের মাথায় তারা মারা যায়।

নয়দিনের শিশু আল আমিনের মা হোসনে আরা সাংবাদিকদের জানান, ঠাণ্ডাজনিত সমস্যা নিয়ে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সকালেও তার স্যালাইনও চলছিল। সকাল ৯টার দিকে তাকে একটি ইনজেকশন দেওয়া হয়। ইনজেকশন দেওয়ার কিছুক্ষণ পরই সে চিৎকার দিয়ে মারা যায়।

তিনি নিশ্চিত ভাবেই বলেন, অবশ্যই ডাক্তাররা ভুল চিকিৎসা অথবা মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ দেওয়ার কারণে তার ছেলের মৃত্যু হয়েছে।

ঘটনার পর সাংবাদিকরা হাসপাতালে শিশু সংশ্লিষ্ট কোন চিকিৎসককে খুঁজে পানিনি। পরে ডা. জাহাঙ্গীর আলমকে পাওয়া গেলে তিনি ভুল চিকিৎসার বিষয়ে অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, শিশুরা জন্মগতভাবে ওজন কম, শ্বাসকষ্ট, ইনফেকশনসহ বিভিন্ন অসুখে আক্রান্ত হয়। অসুস্থতার কারণেই তাদের মৃত্যু হয়েছে। চিকিৎসায় কোনো ত্রুটি ছিল না।

এদিকে এই ঘটনার শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. জেডএম আবদুল্লাহ আল হারুণকে আহ্বায়ক তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি ঘঠন করা হয়েছে। তাদের আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.