সংলাপে রাজী, শর্ত নির্দলীয় সরকার: ফখরুল

fakhrulউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি মেনে নেয়ার শর্তে সংলাপে মাধ্যমে সমঝোতায় রাজী বিএনপি।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি দুই নেতার কাছে বর্তমান সংকট নিরসনে সংলাপের তাগিদ দিয়ে চিঠি পাঠানোর পর বিএনপির পক্ষ থেকে থেকে এই বক্তব্য এলো।

সোমবার শেরেবাংলা নগরে ‘জাতীয়তাবাদী মহিলা দল’ এর ৩৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলেন মির্জা ফখরুল।

তিনি বলেন, “বাংলাদেশের নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে কেবল দেশের জনগণই নয়, সব গণতান্ত্রিক দেশের নেতৃবৃন্দও উদ্বেগে আছেন। তারা চান সব দলের অংশগ্রহণে একটি সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠান হোক।”

আমরা সংলাপের মাধ্যমে সমঝোতা চাই উল্লেখ করে তিনি বলেন, “নির্বাচনকালীন সময়ে একটি নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে- এ বিষয়টি সরকার মেনে নিলেই সংলাপ হতে পারে।”

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজিনা রোববার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধী দলীয় নেতাকে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির চিঠি পৌঁছে দেন।

চিঠিতে নির্বাচন সামনে রেখে দেশে যে রাজনৈতিক সঙ্কট সৃষ্টির আশঙ্কা তৈরি হয়েছে, সে বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী- জানান বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী।

‘বিরোধী দল দেশে গণ্ডগোল সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে’- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন বক্তব্যের জবাবে মির্জা ফখরুল সাংবাকিদের বলেন, “এটা ঠিক নয়। আমরা সচেতনভাবে এমন কর্মসূচি দিচ্ছি, যাতে দেশে কোনো অস্থিরতা সৃষ্টি না হয়।”

এ সময় তিনি বিরোধী দলকে উস্কে দেয়ার জন্য সরকার নানা ধরনের কথা বলছে বলেও অভিযোগ করেন।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ‘জাতীয়তাবাদী মহিলা দল’ এর সভাপতি নুরী আরা সাফা ও সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানার নেতৃত্বে নেতা-কর্মীদের নিয়ে মির্জা ফখরুল প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন দলের কেন্দ্রীয় নেতা খালেদা রাব্বানী, রাবেয়া সিরাজ, সুলতানা আহমেদ, ফরিদা ইয়াসমীনসহ আরও অনেকে।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.