লড়াইয়ের ময়দানে এখনও অনড় ফ্রান্স

Syria Franceউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: সিরিয়ায় সামরিক হস্তক্ষেপের ব্যাপারে ব্রিটেনের পার্লামেন্ট নেতিবাচক সিদ্ধান্ত নেওয়ায় ব্রিটেন স্পষ্টতই পিছু হটছে লড়াইয়ের ময়দান থেকে। যদিও ওবামা প্রশাসন এখনও চাইছে, ব্রিটেনের সাথে আলোচনা চালিয়ে যেতে। তবে এখনও যুক্তরাষ্ট্রের মিত্রশক্তির অন্যতম সদস্যদেশ ফ্রান্স টিকে আছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওঁলাদ বলেছেন, ব্রিটেনের পার্লামেন্টের সিদ্ধান্তে মোটেও পিছপা হবে তার দেশ। এক ফরাসী সংবাদপত্রকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, গত সপ্তাহের রাসায়নিক অস্ত্র হামলার পাল্টা হিসেবে তিনি এখনও সিরিয়ার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার পক্ষে।

ফরাসী পার্লামেন্টে সিরিয়া প্রশ্নে সামনের বুধবার আলোচনা হবে বলে কথা রয়েছে। প্রেসিডেন্ট ওঁলাদ তার আগেই সিরিয়ায় সামরিক হস্তক্ষেপের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না। মি. ওঁলাদ আরও জানিয়েছেন, সিরিয়া নিয়ে তিনি প্রেসিডেন্ট ওবামার সঙ্গেও কথা বলবেন।

এদিকে জার্মানিও জানিয়ে দিয়েছে, তারা সিরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক অভিযানে অংশ নেবে না।

জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী গুইডো ওয়েস্টারওয়েল বলেছেন, সামরিক অভিযানে যাওয়ার অনুরোধ কেউ জানায়নি, এবং এরকম কিছু তারা বিবেচনাও করছেন না।

এদিকে সিরিয়ায় হামলা প্রশ্নে পার্লামেন্টে ভোটাভুটির ফলাফল এমনভাবে বিরোধিতা করবে, তা স্বপ্নেও ভাবেননি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন।

প্রেসিডেন্ট আসাদের কথিত রাসায়নিক অস্ত্র হামলার পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে সিরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক হামলার যে প্রস্তাব তিনি রেখেছিলেন, পার্লামেন্টে বিরোধী লেবার পার্টিই শুধু নয়, তাঁর নিজ দলের পেছনের সারির এমপিরাও তার বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন।

এর পরিপ্রেক্ষিতে ডেভিড ক্যামেরনকে সিরিয়ায় হামলার সম্ভাবনা নাকচ করে দিতে হয়।

ডেভিড ক্যামেরন বলেন, ব্রিটেনের জনগণ যে সিরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক অভিযানে যেতে চায় না, তা পার্লামেন্টের ভোটের ফল থেকে স্পষ্ট, তিনি এটা বুঝতে পেরেছেন এবং এখন সেই অনুযায়ীই তিনি কাজ করবেন।

মিস্টার ক্যামেরনের নেতৃত্বের জন্য এই ফল এক বিরাট ধাক্কা। ইরাক যুদ্ধ থেকে শুরু করে গত কয়েক দশকে বিশ্বের নানা দেশে সামরিক হস্তক্ষেপের সময় যুক্তরাষ্ট্রের পাশে সবচেয়ে বিশ্বস্ত সহচর হিসেবে ছিল ব্রিটেন, কিন্তু এই প্রথম তাতে একটা ছেদ পড়তে যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র স্বভাবতই আশাহত, যদিও মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী চাক হ্যাগেল বলছেন, এরপরও তারা সিরিয়ার প্রশ্নে ব্রিটেনের সঙ্গে শলাপরামর্শ চালিয়ে যাবেন।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.