এবার সাবমেরিন কিনবেন প্রধানমন্ত্রী

PM
চট্টগ্রামে প্রধানমন্ত্রী

উইমেন চ্যাপ্টার: নৌবাহিনীকে আধুনিক ত্রিমাত্রিক বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলতে ভবিষ্যতে সাবমেরিন কেনার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামে দুটি টহল বিমান ও তিনটি যুদ্ধজাহাজের কমিশনিং অনুষ্ঠানে তিনি এ ঘোষণা দিয়ে বলেন, অর্থনৈতিক সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও দক্ষ ও আধুনিক ত্রিমাত্রিক নৌবাহিনী উপহার দিতে সরকার বদ্ধপরিকর।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্রবিরোধের অবসানে বঙ্গোপসাগরে ২০০ নটিক্যাল মাইল পর্যন্ত একান্ত অর্থনৈতিক এলাকার আইনগত অধিকার লাভ করেছি।’ ২০১৪ সালে ভারতের সঙ্গে সমুদ্রসীমার মামলার যে রায় হবে, তাতেও বাংলাদেশ জয়লাভ করবে বলে প্রধানমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই বিশাল সমুদ্রসীমার নিরাপত্তাবিধান অপরিহার্য। নৌবাহিনী ও কোস্টগার্ডের সদস্যরা প্রতিকূলতা মোকাবিলা করে সমুদ্র এলাকার নিরাপত্তার নিশ্চয়তা বিধান করছে।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০১ সালে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় থাকার সময় নৌবাহিনীর বহরে যুক্ত হয়েছিল ত্রিমাত্রিক ক্ষমতাসম্পন্ন বানৌজা বঙ্গবন্ধু। এবার ক্ষমতা গ্রহণের পর ২০১১ সালে নৌবাহিনীতে সংযোজিত হয় ইতালি থেকে কেনা দুটি মেরিটাইম হেলিকপ্টার। আজ নেভাল এভিয়েশনে যুক্ত হলো জার্মানি থেকে কেনা দুটি টহল বিমান।

বেলা সাড়ে ১১টার দিকে চট্টগ্রাম পৌঁছানোর পর প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান নৌবাহিনী-প্রধান ভাইস অ্যাডমিরাল এম ফরিদ হাবিব। এরপর জহুরুল হক বিমানঘাঁটিতে বোতাম টিপে নৌবাহিনীর জন্য কেনা দুটি টহল বিমানের নামফলক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে অত্যাধুনিক যুদ্ধজাহাজ ‘বানৌজা বঙ্গবন্ধু’কে ১২ বছরের গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকার জন্য মর্যাদাপূর্ণ স্বীকৃতি হিসেবে ‘ন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড’ প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী। একই সঙ্গে তিনটি যুদ্ধজাহাজের অধিনায়কদের হাতে কমিশনিং ফরমান তুলে দেন তিনি।

এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর, খাদ্যমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী আফসারুল আমীনসহ সাংসদ, সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তা ও কূটনীতিকেরা উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.