সাম্প্রতিক আলোচিত ইস্যু: ভিকটিম ব্লেমিং এবং গণমাধ্যমের ভূমিকা

উইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক:

রাজধানীর গুলশানের একটি ফ্ল্যাট থেকে ২১ বছর বয়সী এক তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধারের পর প্রতি মুহূর্তে নতুন মোড় নিচ্ছে ঘটনাটি। এটি আত্মহত্যা, নাকি হত্যা তা প্রমাণের আগেই মেয়েটির চরিত্রহননে নেমেছে একটি বিশেষ মহল। মেয়েটির সাথে দেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরার এমডি সায়েম সোবহান আনভীরের সম্পর্ক থাকায় শেষপর্যন্ত মিডিয়াও বসুন্ধরা গ্রুপের হয়ে বা চাপে পড়ে বা কোন অজ্ঞাত কারণে ইস্যুটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছে। শুধু তাই না, মেয়েটির নামে কুৎসা রটনায় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ছাড়াও গণমাধ্যমও নেমেছে।
সমাজে একটি মেয়ে, সে জীবিতই হোক বা মৃত, তাকে যতভাবে সম্ভব হেনস্থা করা যায়, সবই করা হচ্ছে। দৃশ্যত ভাগ হয়ে গেছে দেশের জনসাধারণ। এই ঘটনায় ব্যাপক প্রতিবাদও হচ্ছে। এ নিয়েই আমাদের আজকের আলোচনা।

সাথে আছেন কাবেরী গায়েন, চেয়ারপার্সন, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,
শরিফুল হাসান, ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক
আরও আছেন
সামিনা আখতার কাঞ্চন, উন্নয়নকর্মী
এবং শামীম আরা নীপা, অ্যাক্টিভিস্ট

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.