বিষাক্ত গ্যাস ব্যবহারে সিরিয়ায় নিহত অসংখ্য

syria-deadউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের শহরতলিতে সরকারি বাহিনীর তীব্র গোলাবর্ষণে কয়েকশো লোক নিহত হয়েছে। (খবর: বিবিসি)

নিহতের সঠিক সংখ্যা জানা না গেলেও দেশটির বিরোধীদের জোট সিরিয়ান ন্যাশনাল কাউন্সিল বলছে, নিহতের সংখ্যা হাজার ছাড়িয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়, হামলার সময় বিষাক্ত গ্যাস ব্যবহার করা হয়েছে, যা অস্বীকার করেছে প্রেসিডেন্ট আসাদের সরকার।

এ ঘটনায় প্রকাশিত বিভিন্ন ভিডিওচিত্রে মৃতদেহের সারি ও দামেস্কের হাসপাতালে শিশুদের শারীরিক যন্ত্রণার বীভৎস সব দৃশ্য দেখা যায়।

ভিডিওচিত্রের নিরপেক্ষতার বিষয়ে নিশ্চিত তথ্য না পাওয়া গেলেও সংবাদ তাদেরই এক কর্মীর বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, দামেস্ক থেকে প্রকাশিত যেসব ভিডিও তিনি আগে দেখেছেন, তার সঙ্গে সর্বশেষ এই ভিডিওগুলির বেশ মিল রয়েছে।

এতে আরবী ভাষায় যে ধারা-বর্ণনা রয়েছে তাও আগের ভিডিওর সাথে মিলে যায় বলেও বলেন তিনি।

বিষয়টি তদন্ত করতে জাতিসংঘ তাদের একটি প্রতিনিধি দলকে সিরিয়াতে ঢুকতে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়, দামেস্কের শহরতলির ঘাউটা এলাকায় সরকারি বাহিনীর গোলাবর্ষণের সময় এই বিষাক্ত গ্যাস ব্যবহার করা হয়।

সিরিয়ান ন্যাশনাল কাউন্সিলের মুখপাত্র খালেদ সালেহের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়, ‘এটা দামেস্কের একটা শহরতলি। এতে রকেট এবং রাসায়নিক ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করা হয়। রাতভর হামলায় শত শত লোক প্রাণ হারায়। আমি যখন আপনাদের সাথে কথা বলছি তখন পর্যন্ত, আমাদের হিসেব অনুযায়ী, ১১৮৮ জন নিহত হয়েছে। এর মধ্যে ১০০টিরও বেশি শিশু রয়েছে।’

তবে সিরিয়ার সরকার হামলার হামলার দায় জোর গলায় অস্বীকার করে দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে বিবৃতি দিয়েছে।

বিবৃতিতে ঘাউটা এলাকায় রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের অভিযোগটি সম্পূর্ন বানোয়াট বলেও দাবি করে দেশটির সরকার।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, “আল-জাজিরা, স্কাই এবং অন্যান্য স্যাটেলাইট টেলিভিশনে যে খবর প্রচার করা হয়েছে যে নিরীহ মানুষের রক্তপাত হয়েছে, তা সম্পূর্ন ভিত্তিহীন। এর মধ্য দিয়ে জাতিসংঘ যে তদন্ত করতে চাইছে তাকে নস্যাৎ করা অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে।”

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.