ম্যানিংয়ের ৩৫ বছরের কারাদন্ড

Manningউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: উইকিলিকসের কাছে মার্কিন সেনাবাহিনীর গোপন নথিপত্র ফাঁস করে দেয়ার অপরাদধে ৩৫ বছরের কারাদন্ড দেয়া হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্য ব্র্যাডলি ম্যানিংকে।

দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর ম্যানিংয়ের বিরুদ্ধে বুধবার এই রায় ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্রের একটি সামরিক আদালত।

রায় ঘোষণা করেন সামরিক আদালতের বিচারক কর্নেল ডেনিস লিন্ড।

রায়ে বলা হয় ম্যানিং সাড়ে তিন বছরেরও বেশি সময় ধরে আটক থাকায় এই সময়টি তার দণ্ডাদেশ থেকে বাদ যাবে।

যুক্তরাষ্ট্র সেনাবাহিনীর এই ‘প্রাইভেট ফার্স্ট ক্লাস’ সৈন্য ২০১০ সালে ইরাকে দায়িত্ব পালনের সময়কার ৭ লাখেরও বেশি গোপন নথি, যুদ্ধক্ষেত্রের ভিডিও ও কূটনৈতিক বার্তা উইকিলিকসের কাছে তুলে দেন।

পূর্বে দেশের স্বার্থবিরোধী কাজ করার জন্য ক্ষমা চাইলেও রায় ঘোষণার সময় নির্বিকার ছিলেন ম্যানিং।

এদিকে তার কাজের পক্ষে অনেকে বুধবারও ছিলেন রাস্তায় সক্রিয়। ম্যানিংকে কারাগারে নিয়ে যাওয়ার সময় তার পক্ষের জনতা রাস্তায় স্লোগান দেয়, ‘আমরা তোমার জন্য অপেক্ষা করব ম্যানিং’, ‘ম্যানিং তোমায় ধন্যবাদ, আমাদের হৃদয়ে তুমি থাকবে’।

যুক্তরাষ্ট্রের একটি মানবাধিকার গোষ্ঠি ‘মুখোশ উন্মোচনের’ জন্য চলতি বছরের নোবেল শান্তি পুরস্কারের প্রার্থীর তালিকায় ম্যানিংয়ের নাম থাকা উচিত বলেও মন্তব্য করে।

ম্যানিংয়ের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা ও গোয়েন্দা কার্যক্রমকে ঝুঁকিতে ফেলা, রাষ্ট্রের শত্রুদের সহায়তা, গোয়েন্দাগিরি ও তথ্য চুরি সহ মোট ২২টি অভিযোগ আনা হয়।

তবে রাষ্ট্রের শত্রুদের সহায়তার অভিযোগটি আদালতে প্রমাণ করা যায়নি। কিন্তু অন্য ২০টি অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হন তিনি।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.