‘যোনিতে জন্মগন্ধ থাকে’

সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়:

 

ছবি: ‘সীতা’। ইলোরা গুহা ভাস্কর্য।

যোনিতে জন্মগন্ধ থাকে
যোনিতে জড়িয়ে থাকে
জরায়ুর বন্ধন, রক্তনালিকা

যোনিতে জন্মগন্ধ থাকে।

যোনি শুধু জন্ম নয়
যোনি উন্মাদনা
কামনাও
ভাবে মানুষ

শুধু এটুকু ভাবে না
যোনিতে জন্মগন্ধ থাকে

তমসার তীরে যেদিন
স্বামী পরিত্যক্তা
পূর্ণগর্ভা সীতাকে
নৌকো থেকে পূর্বজীবনের
দস্যু রত্নাকরের আশ্রমে
রেখে গেলেন সুমিত্রানন্দন

সেদিন বাল্মিকী এসেছিলেন নদীর ঘাটে
জনমদুখিনী জানকীকে বরণ করে নিতে
এসেছিল আশ্রমবালকেরা
নারীরা
সংসারত্যাগী কিছু লোভহীন মানুষ!

নারীকে কখনো যোনিগন্ধলোভী রাক্ষস
হরণ করে নিয়ে যায়

কখনো যোনিগন্ধলোভী সমাজ
তাকে অগ্নিপরীক্ষা দিতে বলে

কখনো যোনিসম্ভূত পুরুষোত্তম রাম
একই নারীকে স্বয়ম্বর সভায়
জিতে নেন হরধনু ভঙ্গ করে

কখনো বা যোনিগন্ধলোভী
না মানুষদের সমাজের কথায়
সেই বরবর্ণিনী অপরূপা
গর্ভবতী নারীকেই তিনি
পরিত্যাগ করেন!

যোনিতে জন্মগন্ধ থাকে
যোনিতে জন্মগন্ধ থাকে!

অযোনিসম্ভূতা
যজ্ঞাগ্নিজাতা পাঞ্চালি
কিংবা জনকনন্দিনী সীতা
যোনিগন্ধলোভী সমাজ
যোনিগন্ধলোভী পুরুষ
যোনিগন্ধলোভী ধর্ম

কেউ তাকে স্থিরতা দেয় না!
মহাকাব্যের কালে
বা আজকাল, এই মাটি পৃথিবীর
প্রতিটি জীবন ভুলে যায়

যোনিতে জন্মগন্ধ থাকে।

পুরুষোত্তম রামচন্দ্রের অশ্বমেধের ঘোড়া
থেমে যায় যমজ পুত্রের পরাক্রমের কাছে
স্ত্রীকে বরণ করে বনবাস থেকে
ফিরিয়ে এনেও
পুত্রমুখ দর্শনের আনন্দ নিরাশায় ঢেকে যায়!

সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

মহাকাব্যের নায়ক, যুগপুরুষ
ত্রেতা যুগের সর্বোত্তম মানুষ তিনি
অথচ
লঙ্কাপতি, মহাকালের পূজারী
অসীম ধনশালী রাবণকে
সবংশে হত্যা করা, দিগ্বিজয়ী বীর
সমাজের ক্ষুদ্রতার সিদ্ধান্তকে
প্রভাবিত করতে ব্যর্থ হয়েছেন!

বারংবার অগ্নিপরীক্ষার অপমানে
ধরিত্রীর কোলে ফিরে যান জনকনন্দিনী

প্রিয় নারীর এই অবমান
এই সুতীব্র যন্ত্রণা
এই মর্যাদাহীনতা
নারীর প্রতি সমাজের এই অসহনীয় আচরণ দেখে
হয়তো বা দুহাতে মুখ ঢেকেছেন তিনি!
গোপন করেছেন ক্ষোভ অভিমান
আর তীব্র বীতরাগের অক্ষম
দরবিগলিত অশ্রু!

পরিশেষে কালপুরুষের পরামর্শে
সরযূর হিমজলে
প্রাণ বিসর্জন দেন
মর্যাদা পুরুষোত্তম শ্রীরামচন্দ্র!

কেউ কি জানি, কেন?
প্রিয় স্ত্রীকে হারানোর জন্য?
নারীর অপমানের জবাব দিতে না পারার
অনুশোচনায়?
ঋষি দুর্বাসার তীব্র ভর্ৎসনায়?
না মানুষে পরিপূর্ণ সেই ত্রেতা যুগের
সমাজের শাস্তিবিধান করতে না পেরে?
হয়তো বা!
হয়তো বা এই সবকটাই ছিল তার কারণ!
হয়তো বা! হয়তো বা!

যোনিগন্ধলোভী সমাজ বারেবারে
কালে কালে ভুলে যায়
নারীকে অপমানের আরেক অর্থ
বিনাশ!
সর্বনাশ!
যুগান্তর!

যুগে যুগে কালে কালে
ক্ষুদ্রতাকে, নীচতাকে
হীনতা, মিথ্যা, ভন্ডামিকে আপন করা
না মানুষদের সমাজ কেবলই
ভুলে যেতে চায়

যোনিতে জন্মগন্ধ থাকে
যোনিতে জন্মগন্ধ থাকে!

আজও যোনিগন্ধলোভী
ধর্মান্ধ, না মানুষে সংখ্যাগরিষ্ঠ
স্বার্থসন্ধ ভন্ড সমাজ
ভুলে আছে

যোনিতে জন্মগন্ধ থাকে
যোনিতে জন্মগন্ধ থাকে।।

আঠাশ জুলাই/ কুড়ি সাল/ মধ্যরাত।।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.