করোনা-উত্তর বিশ্বে নারী নেতৃত্বের কেন প্রয়োজন!

নাসরীন রহমান:

করোনা মোকাবেলায় বিশ্বের নারী নেতৃত্বাধীন কিছু দেশ যেভাবে সফলতা দেখিয়েছেন তা রীতিমতো দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।
যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য কিংবা রাশিয়ার মতো দেশগুলো রাষ্ট্র প্রধানেরা যেখানে মহামারি ঠেকাতে হিমশিম খাচ্ছেন, সেখানে দক্ষ নেতৃত্বের মাধ্যমে করোনা মোকাবেলায় সফল হচ্ছেন নারী সরকার প্রধানরা।

এসব নারী নেতৃত্বাধীন দেশগুলোর করোনা মোকাবেলার কৌশল বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় নেতৃত্বের কয়েকটি সাধারণ গুণাবলির কারণেই তারা করোনা ঠেকাতে সফল হয়েছেন। এইসব গুণাবলির মধ্যে রয়েছে, তথ্যের স্বচ্ছতা, দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ, নাগরিকদের প্রতি ভালোবাসা ও দায়বদ্ধতার মতো গুণাবলি।

করোনা মহামারির মতো এই বৈশ্বিক সংকটের সময়ে দক্ষ নেতৃত্বের দৃষ্টান্ত রেখেছে জার্মানি, নিউজিল্যান্ড, আইসল্যান্ড, ফিনল্যান্ড, ডেনমার্ক ও তাইওয়ানের মতো দেশগুলো। বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। যদিও সেইসব পদক্ষেপ বাস্তবায়নে সমন্বয়হীনতাও চোখে পড়ার মতোন।

ইউনাইটেড ইনিস্টিউট অফ পিচ তাদের একটি প্রতিবেদনে বলছে, করোনার মতো মহামারী ঠেকাতে নারীর অভিজ্ঞতা ও তাঁদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

বাস্তবিক করোনা মোকাবেলায় বিশ্বের নারী নেতৃত্বাধীন দেশগুলোতে দিকে তাকালে এর সত্যতা খুঁজে পাবো। নারী নেতৃত্বাধীন দেশগুলোর এই সফলতার দিকে ইংগিত করে প্রশ্ন উঠছে; হাজার বছর ধরে চলে আসা পুরুষ নেতৃত্বের জায়গা কি এবার ছেড়ে দেবার সময় এসেছে নারী নেতৃত্বের জন্য?

শুধু করোনা পরিস্থিতি নয়, গত কয়েক দশক ধরেই আমরা দেখে এসেছি নেতৃত্বের দিক দিয়ে নারী নেতৃত্ব যথেষ্ট সফল এবং কঠিন ও প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নিতে সক্ষম।

অতীতের দিকে তাকালে দেখবো ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর যোগ্য নেতৃত্ব, সারাবিশ্বের পররাষ্ট্রনীতিতে হিলারি ক্লিনটনের দাপট, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে জার্মানির চ্যান্সেলর এঙ্গেলা মের্কেলের দৃঢ়তা উল্লেখযোগ্য।

বর্তমানে বিশেষত করোনা মোকাবেলায় ভারতের মমতা ব্যানার্জির সাহসিকতা, সিদ্ধান্ত গ্রহণ, জনগণের প্রতি তাঁর দায়বদ্ধতা অনুকরণীয় হয়ে থাকবে। কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্তের তোয়াক্কা না করে কীভাবে নিজের রাজ্যকে সঠিক একটা পথ দেখানো যায়, অনন্য উদাহরণ হয়ে থাকবেন তিনি। তাঁর নেতৃত্ব পশ্চিমবঙ্গের তাবৎ মানুষকে সাহস যোগাচ্ছে এই সময়।

এই করোনা আক্রান্ত পৃথিবীতে এরা ছাড়াও সফল নেতৃত্বের জন্য ডেনমার্কের মেটে ফ্রেডেরিকসেন, আইসল্যান্ডের ক্যাটরিন, নরওয়ের আর্না সলবার্গ, তাইওয়ানের সাই ইং ওয়েন এবং সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী ফিনল্যান্ডের সানা মার্টিন প্রশংসিত হচ্ছেন – যারা সকলেই নারী।

অন্যদিকে পৃথিবীর সবচেয়ে ক্ষমতাধর কিন্তু করোনা মোকাবেলায় সমালোচিত ও আপাত ব্যর্থ নেতা হিসেবে সমালোচিত হচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, ইউকের বরিস জনসন, চায়নার শি জিনপিং, এরা সবাই পুরুষ!

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জাতীয়তাবাদ আগুনে ঘি দিয়ে তাঁর স্বরূপটি দেখাচ্ছেন! এই মহামারীকালে নরেন্দ্র মোদির প্রদীপ প্রজ্বলন ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছিল!

শুধু নেতৃত্বের দিক দিয়ে নয়, চিকিৎসা ক্ষেত্রেও এই সময় নারীর ভূমিকা উল্লেখ করার মতো।

এই করোনা সংকটকালে চিকিৎসা ক্ষেত্রে অত্যাবশ্যকীয় জরুরি সেবাদানে নারীর ভূমিকাই অগ্রগণ্য। চীনে যেভাবে নারী চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীরা দিনরাত এক করে করোনা রোগীকে সেবা দিয়েছেন, বা অন্যান্য দেশে একই উদাহরণ প্রযোজ্য হচ্ছে, তা ইতিহাস হয়ে থাকবে।

বাংলাদেশে গত কয়েকদিন আগে একটি সংবাদ ব্যপক ভাইরাল হয়েছিলো, সেখানে দেখা যাচ্ছে একজন সেবিকা করোনা রোগীর সেবার জন্য হাসপাতালেই থাকছেন, তার ছোট্ট মেয়েটিকে এক আত্মীয় দূর থেকে তাকে দেখিয়ে নিচ্ছেন!

তাই সার্বিক বিবেচনায় এটা বলা মোটেও বাহুল্য হবে না যে করোনা-উত্তর পৃথিবীতে নারী নেতৃত্বে, নারী ক্ষমতায়ন সুখ ও সমৃদ্ধি আনবে বলেই প্রতীয়মান হয়। আমরা যদি এই সময় পরিবারগুলোর দিকে তাকাই দেখবো; করোনার এই মহামারীর সময়েও নারী উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছেন।

এই দুর্যোগে নারীই পরিবারের হাল ধরছেন আপদকালীন পরিস্থিতি ট্যাকল দিতে; না আমি শুধু আয়-ব্যয়ের কথাই বলছি না। সব ক্ষেত্রেই নারীকেই নেতৃত্ব দিতে হচ্ছে পরিবারের সদস্যদের মনোবল টিকিয়ে রাখতে, আপদকালীন সময়ে সাংসারিক খরচ কমিয়ে আনতে, সন্তানের যত্নআত্তি ইত্যাদি সব ক্ষেত্রেই।

অন্যদিকে পুরুষেরা বাড়াচ্ছেন সহিংসতা!
করোনাকালে তারা পারিবারিক সহিংসার ঘটক হয়ে সংবাদের শিরোনাম হচ্ছেন!

পরিবারে নারীর এই যোগ্য ভূমিকা ও পুরুষের বিভৎস রুপ মুল্যায়ন করে নতুন করে বিবেচনা করা উচিত; সংসারে নারীরই এখন থেকে মুখ্য কর্তৃত্বে থাকা উচিত কিনা?

কেননা করোনার এই সংকটকালে এটা প্রমাণিত কী রাষ্ট্রীয় নেতৃত্ব, কী সংসারে, সবখানে নারীরাই এগিয়ে। নারীরাই পারেন সঠিক সময়ে সঠিক নেতৃত্ব দিতে; সিদ্ধান্ত নিতে এবং তা কার্যকর করতে।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.