‘Each for Equal’: সমতা না অসমতার ভাষা?

রিফাত মাহবুব:

নারী দিবস নিয়ে এখন আমার মধ্যে আর কোনো উত্তেজনা নেই. বিগত এক যুগে কর্পোরেট কালচার-মার্কেট ইকোনমি-ফেইসবুক’র জগতে নারীদিবস মানে আট’ই মার্চ একটা চকচকে মোড়কে মোড়া কেক কাটা, প্রাউড টু বি এ ওম্যান মার্কা পোস্ট দেয়া অ-চিন্তার দিন। শুধু ‘নারী’ হয়ে জন্মানোর কারণে নিজেরা গর্ব বোধ করেন তাদের আমি সাধুবাদ জানাই, তবে প্রশ্ন জাগে তাহলে পুরুষরাই বা কেনো গর্বিত হবেন না ? — যাক এতো তেতো চিন্তার মানুষদের বেশি কথা না বলাই ভালো।

এবছরের নারী দিবসের থিম ‘Each for Equal’। সত্যি বলতে কী থিম বা ট্যাগলাইন যাই বলুন, ‘Each for Equal’ বাক্যাংশটা আমাকে একটু চিন্তায় ফেললো। তার কারণ হলো, নারীবাদের যতটুকু আমার জানা, তার অনেকটাই ব্যক্তির চেয়ে সমষ্টিকে নিয়ে চলার আলোচনা। মোটা সরলীকরণে এর একটা কারণ হলো পুঁজিবাদের মূলে হলো ব্যক্তি — ব্যক্তি’র বাড়ি , ব্যক্তির পুঁজি , ব্যক্তির লাভ। নারীবাদ সমষ্টির সমতার আলাপে ব্যক্তিকেন্দ্রিকতা’র ঊর্ধ্বের ধারণাসমূহ। নারীবাদে ব্যক্তি’র সত্তা কেবল ‘এক’ নয় — বরং ব্যক্তি গুরুত্বপূর্ণ কারণ প্রত্যেকের স্থান আর কাল রাজনৈতিক ( personal is political ), সেখানে ‘each’ এর ব্যাপ্তি সামাজিক, রাজনৈতিক আর অর্থনীতির — সেখানে ব্যক্তির অভিজ্ঞতা সমষ্টির সমতার আন্দোলনের উৎস।

সেক্ষেত্রে হঠাৎ এই ‘each’ এর প্রতি লক্ষ্যটা’ই আমাকে ভাবিয়ে তুললো, সত্যিই কি সবাই সমানভাবে দাঁড়ানো? সত্যি কি সবাই সমতার লড়াইয়ে অংশগ্রহণ করতে পারেন? সমতার সংজ্ঞাতে ‘each’ বা ‘প্রত্যেক’ এর অর্থই বা কি ? সমতা কার সাথে? আর এই সমতার পরিসীমা কোথায় — দেহে, চিন্তায়, ঘরে, কর্মক্ষেত্রে, পথে?

এই সবখানে ‘each’ তো ভিন্ন –সব ‘each’কে কি আমরা চিন্তার সীমাতেও আনতে পেরেছি? নাকি এই ‘each’ ও শ্রেণী, বর্ণ, উত্তর-দক্ষিণ গোলার্ধ ভাগ করা কিছু উদাহরণ ? এই সব প্রশ্নের উত্তর কঠিন, আর আমার জানাও নেই। ব্যক্তি মাত্রই চিন্তাশীল — তবে অনেকের চিন্তা কেবল ব্যক্তি বা ‘আমি’ কে নিয়েই থাকে — সেক্ষেত্রে ব্যক্তি হয়তো নিজের সমতার চিন্তা করে, অন্যের সাথে তার নিজের অসমতা বাড়িয়ে তুলতে পারেন (যেমন আমি এক ধনী বন্ধুর সমান হতে যেয়ে দামি জামা কিনলাম, তাতে আমার ব্যবধান আমার মতো অন্য বন্ধুদের চেয়ে বেড়ে যেতে পারে। …)

তবে ‘Each for Equal’ এর মধ্যে সবাইকে অন্তুর্ভুক্তির ইচ্ছা দেখতে পাচ্ছি, সেটা হয়তো আশার কথা। হয়তো ‘each’ কে ইউনিট ধরে সমতার চিন্তা ছড়িয়ে দেয়ার অনেক প্রয়াস নেয়া হবে। তবে খেয়াল করতে হবে, এই ‘each’ বা ‘প্রত্যেক’ যেন ফেইসবুক -মার্কা, পুঁজিবাদের ‘আমিত্বে’ পরিণত না হয় — তাহলে ব্যক্তিতে ব্যক্তিতে অসম্তাই কেবল বাড়বে।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.