পুলিশ কেন এতো জেন্ডার অসংবেদনশীল?

গত ২৫ ফেব্রুয়ারি আমাদেরই একজন অ্যাক্টিভিস্ট মারজিয়া প্রভার সহযোগিতায় থানায় জিডি করতে গিয়েছিলেন টঙ্গীর এক গার্মেন্টস কর্মী। তার বেকার স্বামী তাকে প্রতিনিয়ত শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে এটাই ছিল মূল অভিযোগ। কিন্তু অভিযোগ দায়ের করতে গেলে থানার দায়িত্বশীল কর্মকর্তা তাদের সাথে নানারকম অশালীন এবং জেন্ডার অসংবেদনশীল আচরণ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে আইজিপি বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়, এবং এক পর্যায়ে থানার ওই কর্মকর্তা তাদের কাছে মৌখিকভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এখানেই শেষ হতে পারতো ঘটনাটি। কিন্তু এটিই প্রথম এবং শেষ কেস না বলে আমরা এ নিয়ে আলোচনার প্রয়োজন আছে বলে মনে করছি।

প্রভা বলেছেন, “আমি চাই প্রাতিষ্ঠানিকভাবে আব্দুল মালেকদের ভাঙ্গতে৷ অর্থাৎ একজন নারীবাদী এবং নারী অধিকারকর্মী হিসেবে আমার চাওয়া, বাংলাদেশের সব মেয়ে যাতে জেন্ডার সংবেদনশীল আইন প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যেতে পারে, জেন্ডার বান্ধব প্রশাসন যেন সত্যিই প্রতিষ্ঠিত হয়। আর কাউকে এরকম পুলিশ কর্তৃক হয়রানি যেন না পোহাতে হয়”।

এ নিয়েই আজকের আলোচনা। এতে অংশ নিয়েছেন মারজিয়া প্রভা নিজে, অ্যাক্টিভিস্ট দিলশানা পারুল এবং আইনজীবী প্রমা ইসরাত, এবং মডারেটর হিসেবে সুপ্রীতি ধর, উইমেন চ্যাপ্টার এর প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.