তানবীরা তালুকদারের দুটি বই

তানবীরা তালুকদার দীর্ঘদিন নেদারল্যান্ড প্রবাসী। লেখালেখির সাথেও জড়িত বহু বছর ধরেই। এরই মাঝে তার বেশ কয়েকটি বই প্রকাশিত হয়েছে। আজ আমরা কথা বলেছি তার ‘একদিন অহনার অভিবাসন’ এবং ‘তিন ভুবনের শিক্ষা’ দুটি বই নিয়ে। তিন ভুবনের শিক্ষা বইটি মূলত তিনজনের তিন দেশের অভিজ্ঞতা নিয়ে লেখা।
আলোচনায় অংশ নিয়েছেন লেখক নিজে, সেইসাথে আফসানা কিশোয়ার লোচন এবং শামীম আরা নীপা।

ভিডিওটির পাশাপাশি লেখকের ‘একদিন অহনার অভিবাসন’ নিয়ে একজন পাঠকের প্রতিক্রিয়া এখানে সংযুক্ত করা হলো:

নূরুন নাহার জুঁই লিখেছেন,

অসম্ভব মুগ্ধতা নিয়ে পড়ে ফেললাম তানবীরা আপু’র লেখা প্রথম উপন্যাস “একদিন অহনার অভিবাসন”। প্রায় দুইশ পৃষ্ঠার এ বইটির মুল চরিত্র অহনা, যার বিয়ে এবং বিয়ে পরবর্তী অভিবাসন-অভিযোজনের গল্পই উঠে এসেছে বইটিতে। সদ্য কৈশোর পেরনো উচ্ছল অহনার বিয়ে হয় সম্পূর্ণ অপরিচিত প্রবাসী চাকুরে অর্নর সাথে। দুচোখে হাজারো স্বপ্ন নিয়ে অহনাও অভিবাসী হয়। কিন্তু স্বপ্ন ভঙ্গ হতে সময় লাগে না।

পুরোটা বই জুড়েই রয়েছে এই স্বপ্নভঙ্গ আর আবার নতুন করে স্বপ্ন দেখে সামনে এগিয়ে যাবার গল্প। এই এগিয়ে যাবার পথটা আবার দুটো সমান্তরাল পথ হয়ে গেছে, যার একটাতে আছে শুধুই অহনা আর অর্ন, তাদের অম্লমধুর রসায়ন, একটু একটু করে একজন অন্যজনকে জেনে বুঝে চিনে নেয়া, অহনার অবুঝ ছেলেমানুষি, অর্নর হিসেবি পরিপক্কতা, কিছুটা শাসন, কিছুটা রাগ- অভিমান আর অনেকখানি ভালোবাসা, যা কিনা একটু একটু করে পূর্ণতার পথে এগিয়েছে। আর অন্য পথটাতে আছে জীবনে চলার পথের মানুষগুলো। এই মানুষগুলোর কেউ কেউ অহনাকে আঘাত করেছে, কেউ সামনে এগোতে উৎসাহ দিয়েছে আবার কেউ খুঁজেছে নিছক বন্ধুতা। অহনা মিশুক, তবু দিন শেষে ভীষণ একা। এরকম একা বোধহয় অভিবাসী প্রত্যেকটা মানুষ!

“একদিন অহনার অভিবাসন” পড়তে পড়তে বার বারই নেদারল্যান্ডসে আমার প্রথম দিককার দিনগুলোর কথা মনে পড়ে যাচ্ছিল, যখন বহু সংগ্রাম করে রান্না করার পর নিজে মুখে দিতে পারতাম না কিন্তু অর্ক সোনামুখ করে খেয়ে উঠত আমাকে সান্ত্বনা দিতে, সারাদিন রাস্তায় একটা মানুষ দেখার আশায় জানালায় গাল ঠেকিয়ে বসে থাকতাম, একাকীত্ব কাটাতে উদ্দেশ্যহীন ঘুরে বেড়াতাম আবকাউডার রাস্তায় রাস্তায়, আমাদের সাইকেল কেনা, সেই সাইকেল নিয়ে যেদিকে দুচোখ যায় চলে যাবার দিনগুলো… এককথায় “একদিন অহনার অভিবাসন” একটা সুখপাঠ্য বই। যদিও প্রত্যেকের সংগ্রামই আলাদা আর অনন্য, তবু আমার মনে হয় স্বামীসূত্রে প্রবাসী প্রত্যেকটা মেয়েই এক একজন অহনা।

শেয়ার করুন:
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.