মিথিলা, আপনি ঘুরে দাঁড়ান

নাজনীন মুন্নী:

“আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, আমার সম্মান ও মর্যাদা শুধু আমার আকার, আমার অন্তর্বাস কিংবা ব্যক্তিগত ছবির মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। জীবনে কঠোর পরিশ্রম, সৃজনশীলতা ও শিক্ষার মাধ্যমে সব অর্জন করেছি।”

… এইটা জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও গায়িকা রাফিয়াত রশিদ মিথিলার কথা।

আমি জানি লাফ দিয়ে উঠে অনেকে বলবেন, আরে মাইয়া শুইয়া বড় হইছে। এখন বড় কথা বলে।
সবাই জেনে রাখেন প্রকাশ্য যে চেহারাটা, যে কাজটা আপনি দেখেন তা অন্য কেউ করে দেয় না। সেটা সেই মানুষটারই কৃতিত্ব। তবে তার মেধা দেখানোর সুযোগ করে দেয়ার নাম করে যে পুরুষ তাকে ব্যবহার করে তাকে থু থু দেন। কারণ যে কাজটা তার এমনিতেই করার কথা তা সে বিক্রি করেছে। মূল্য হিসাবে এমন কিছু নিচ্ছে যা সবচে দামী। সেই লম্পটটা যদি আপনার কাছে ভালো হয়, আপনি বুঝবেন আপনার মধ্যেও লাম্পট্যের বীজ আছে এবং আপনি নিজেও লম্পট!!

মিথিলা ইংরেজিতে যে স্ট্যাটাস লিখেছেন, তা বোঝার ক্ষমতা বা শিক্ষা বেশিরভাগেরই নেই যারা তাকে উলঙ্গ করছেন। যারা কথা বলছেন তারা হলফ করে বলতে পারবেন, আপনার প্রেমের সময়টি এরচেয়ে কিছু কম অন্তরঙ্গ মুহূর্ত কাটিয়েছেন? আপনি আপনার ভালোবাসার মানুষটিকে চুমু খান না?মিথিলা ডিভোর্সি। তার প্রেমিক থাকতে পারে এবং তাকে তিনি বিয়েও করার পরিকল্পনা করে থাকতে পারেন। সেই সম্পর্ক আবার ভেঙ্গেও যেতে পারে এবং তিনি সামনে দিকে এগুতে থাকতেই পারেন। এটাই স্বাভাবিক।

… এইগুলা সবার জীবনে ঘটে যাওয়া অতি সাধারণ ঘটনা। কিন্তু এই সাধারণ ঘটনায় যারা অতি সতি-সাধ্বী সাজার চেষ্টা করছেন, তারা কি নিজেকে একবার আয়নায় দেখেন?

মিথিলার সাথে যে পুরুষটি … ইফতেখার আহমেদ ফাহমি, তার কোনো দোষ আপনি দেখছেন না, কারণ আপনি মনে করেন পুরুষরা এমন একটু-আধটু করতেই পারে। আপনি নারী, আপনার স্বামীকে অন্য নারীর সাথে প্রেমরত অবস্থায় দেখেও সংসার ছাড়েন না। সুন্দর সুন্দর ছবি পোস্ট করে সুখী সাজেন। কিন্তু আপনার স্ট্যাটাস সিম্বল স্বামী যার সাথে সম্পর্ক করলো তার জীবননাশ করে ফেলেন।

আপনি কি জানেন আপনার এই অবস্থান সেই পুরুষটিকে অন্য ১০ জন নারীর জীবন নষ্ট করার লাইসেন্স দিচ্ছে? এবং সেই লাইসেন্স আপনার কাছ থেকেই সে পাচ্ছে? সময় আছে, আপনার পুরুষটিকে বদলান অপর নারীকে অসম্মান না করে।

কোন মেয়ে কার সাথে শুইলো তা নিয়ে জগত আন্ধার করে ফেলেন। আপনি দেখেন কি আপনারও একটা কন্যা সন্তান আছে? তার এমন ছবি ছড়ালে আপনার কেমন লাগবে?

নিজে সফল না হতে পারলে অন্যের সফলতা শুয়ে কামানো যারা ভাবেন, তারা দয়া করে একবার ভাবেন নিজের কিছু না থাকলে কারো শোয়ার সঙ্গীও হওয়া যায় না। মেয়েটির শোয়ার জন্য একজন পুরুষ লাগে। সেই পুরুষ আপনারই স্বামী, বন্ধু বা ভাই। ঐ মেয়েটি যদি আপনার চোখে নষ্ট হয়, তবে তার চেয়েও নষ্ট তারা শতগুণ।

এই ঘটনায় পুরোটাই আমার দোষী মনে হচ্ছে ফাহমিকে। এটা অবশ্য আমার একান্ত মতামত। লোকটাকে কেন জানি আপাদমস্তক আমার লম্পট মনে হয়। তার ফেইসবুক আইডি হ্যাকড হয়েছে, কিন্ত তিনি থানায় কোনো কম্প্লেইনই করেন নাই। অথচ যে প্রতিক্রিয়া মিথিলা দেখিয়েছে তার দেখানো উচিত ছিলো আরও বেশি। নিজে লাইম লাইটে থাকতে এই ঘটনা সে ঘটায়নি আপনি শিওর?

সবশেষে বলি, ভাইরে সবার নিজের ব্যক্তিগত জীবন আছে। আপনার এমন কোনো ছবি ছড়িয়ে পড়লে আপনার কেমন লাগতো তা ভেবে একটু সভ্য হোন। আমরা লোকে কী বলবে সে ভয়ে বেঁচে থাকা ভুলে যাচ্ছি। আপনারা একটু অন্যর জীবনে নাক গলানো বন্ধ করেন। সবার নিজের মতো করে বাঁচার অধিকার আছে।

প্রসঙ্গত: সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নির্মাতা ইফতেখার আহমেদ ফাহমির সঙ্গে তার কিছু ব্যক্তিগত ছবি নিয়ে দুদিন ধরে সমালোচিত হচ্ছেন। অনেকেই তাকে নিয়ে নানা মন্তব্য করেছেন। এসবের পরিপ্রেক্ষিতে মিথিলা স্বীকার করেছেন যে, ‘নিজের গোপনীয়তা রক্ষা করতে না পারার দায় আমারই।’

এদিকে ব্যক্তিগত ছবিগুলো ফাঁস হওয়ায় আইনি পদক্ষেপও নিয়েছেন এই অভিনেত্রী। সাইবার অপরাধ বিভাগে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ করেছেন তিনি।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.