‘লিখিতং পড়িতং বিবাহের কারণং’

0

গোপা মল্লিক:

যখন আমাদের সহপাঠী কোনো মেয়ে পড়া না করে স্যারের কাছে আসতো, তখন স্যার তাকে উদ্দেশ্য করে প্রায়ই বলতেন, ‘লিখিতং পড়িতং বিবাহের কারণং’। পরে স্যারের কাছে এ বিষয়ে ব্যাখ্যামূলক গল্প শুনেছি। আর তারও পরে বিষয়টা কতটা বাস্তব, সেটা উপলব্ধিও করেছি।

আমাদের দেশের অধিকাংশ মেয়ে ও তাদের পরিবার পড়াশোনাকে বিবাহের হাতিয়ার হিসেবে দেখে আসে। মেয়েকে শিক্ষিত করা হয় ভালো একটা পাত্র পাওয়া যাবে এই আশায়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ছেলে ও ছেলের পরিবার আশা করে অনার্স পড়ুয়া মেয়ে। মাস্টার্স পড়ুয়া মেয়েও একটু বেশি বয়স্কা হয়ে যায় তাদের দৃষ্টিতে। কেউ কেউ তো আবার পাত্রী দেখতে এসে যতদূর ইচ্ছা পড়াশোনা করো, কিন্তু চাকরি করা যাবে না এমন শর্তও দিয়ে বসে।

গোপা মল্লিক

আচ্ছা, একটা শিক্ষিত, এডাল্ট মেয়ে চাকরি করবে কী করবে না সে সিদ্ধান্ত তার উপর চাপিয়ে দেবার আপনি কে মশাই? একটা শিক্ষিত বেকার ছেলেকে মেয়ে দেয়া যায় না। তার পিছনে লজিক আছে। কিন্তু একটা শিক্ষিত মেয়ে চাকরি করবে কি করবে না সে সিদ্ধান্তটা তাকেই নিতে দেন না!

আমাদের পরিবারগুলোও অনার্স -মাস্টার্স শেষ করার পর একটা ছেলেকে কিছু বছর সময় দেন, চাকরির প্রস্তুতি নেবার জন্য। কিন্তু কয়টা অনার্স/মাস্টার্স মেয়েকে এই সময়টা দেয়া হয় বলতে পারেন?
হয়তো বলবেন আমাদের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটের কথা। কিংবা বেশি বয়স হয়ে গেলে মেয়ের জন্য পাত্র পাওয়া যাবে না এমন কথা। আমি মেনে নিচ্ছি।

কিন্তু যে মেয়ের পরিবার তাকে এই সাপোর্ট দেয়, তাদের নিয়ে সমালোচনা করার অধিকার আপনাকে কে দিয়েছে? আপনি পারেননি, আপনার সমস্যা আছে ভালো কথা। তা বলে কেউ নিজের পায়ে দাঁড়াতে চাইলে, তার একটু চাকরি খুঁজতে বয়স বাড়লে আত্মীয় কিংবা প্রতিবেশী হিসেবে আপনার এতো মাথাব্যথা হবার কারণ কী?

একটা শিক্ষিত বেকার মেয়ে আরেকটা অল্পশিক্ষিত বেকার মেয়ে দুজনেই যদি গৃহিণী হয়, তাবে তাদের মধ্যে পার্থক্যটা কোথায় থাকে বলতে পারেন?
একটা বাচ্চাকে পড়াশোনা শেখানো বা অক্ষরজ্ঞান দেয়ার জন্য একটা এসএসসি পাশ মা যথেষ্ট। তবে বিয়ের বাজার থেকে অনার্স পড়ুয়া মেয়ে বাছার কারণটা কি জাস্ট শো অফ করা?

এই যুগে এসেও একটা বাবা মায়ের উদ্দেশ্য মেয়েকে কেবলমাত্র শিক্ষিত করা, প্রতিষ্ঠিত করা নয়। এজন্য একটা ছেলেকে যেমন শেখানো হয় তোমাকে সংসারের দায়িত্ব নিতে হবে, চাকরি করতে হবে, একটা মেয়েকে কিন্তু এমন উৎসাহ দেয়া হয় না। বরং যেসব বাবা মায়েরা একটু সচেতন, মেয়েরা নিজের পায়ে দাঁড়ানোর জন্য প্রত্যয়ী, আর বাবা মা তাদের সাপোর্ট দেন, সমাজের কাছে তাদের শুনতে হয় -সেই বাবা মা নাকি লোভী, তাই মেয়ের ইনকাম খেতে চায়।

মানে দাঁড়ালো, আপনি যেটা করে দেখাতে পারলেন না আবার অন্যের ভালো কাজটাও আপনার সহ্য হলো না।

এই চিন্তাধারা থেকে বের হোন। ভালো কাজ করে দেখাতে না পারেন অন্তত ভালো চিন্তা করুন।

শেয়ার করুন:
  • 46
  •  
  •  
  •  
  •  
    46
    Shares

লেখাটি ২৬২ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.