‘সরকারের স্বৈরাচারী মুখোশ উন্মোচিত হয়েছে’

Khaleda Zia 2উইমেন চ্যাপ্টার: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, মানবাধিকার সংগঠন অধিকার এর সাধারণ সম্পাদক আদিলুর রহমান খান শুভ্রকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় সরকারের স্বৈরাচারী মুখোশ উন্মোচিত হয়েছে। রোববার এক বিবৃতিতে তিনি একথা উল্লেখ করে এই গ্রেপ্তারের তীব্র নিন্দা জানান।

অধিকার এর এই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে হেফাজত অভিযান নিয়ে বিকৃত তথ্য প্রচারের অভিযোগে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে পুলিশ শনিবার রাতে গ্রেপ্তারের পর বিরোধী দলীয় নেতা এই বিবৃতি দেন।

চারদলীয় জোট সরকার আমলের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আদিলকে অবিলম্বে মুক্তি দিতেও সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

খালেদা জিয়া বলেন, ‘বাংলাদেশে মানবাধিকার পরিস্থিতি চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। এই পরিস্থিতির বিষয়টি নিয়ে যারা সোচ্চার হচ্ছেন, এখন তাদের ওপর সরকারের খড়গ নেমে এসেছে। এই (আদিলকে গ্রেপ্তার) ঘটনায় আমরা উদ্বিগ্ন ও উৎকণ্ঠিত’।

গত ৫ মে রাতে মতিঝিলে হেফাজতে ইসলামের সদস্যদের সরাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানে ৬১ জন নিহত হয় বলে অধিকার তাদের প্রতিবেদনে উল্লেখ করে। তখন বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীর নেতারাও মতিঝিলে গণহত্যা চালানো হয় বলে দাবি করা হয়েছিল। পরে মানবাধিকার ওয়াচডগের এক রিপোর্টে অবশ্য গণহত্যার কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে উল্লেখ করা হয়।

এদিকে আদিলুর রহমানকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ জানিয়ে জামায়াতসহ ১৮ দলীয় জোটের অন্য দলগুলোও বিবৃতি দিয়েছে। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ বা টিআইবি এবং বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনও এই ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে।

সরকারের বিরুদ্ধে দমন-পীড়নের অভিযোগের এনে সর্বশেষ নজির হিসেবে আদিলকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি তুলে ধরেন খালেদা জিয়া।

খালেদা জিয়া বিবৃতিতে বলেন, ‘দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির চরম অবনতির অবস্থা যখন দেশে-বিদেশে প্রকাশ পাচ্ছে, ঠিক সেই সময়ে অধিকারের মতো একটি মানবাধিকার সংস্থার সেক্রেটারিকে গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। এ থেকে বোঝা যায়, সরকার তার নীলনকশা নিয়ে এগুচ্ছে’।

আমার দেশ পত্রিকা এবং ইসলামিক টিভি, দিগন্ত টিভি বন্ধের কথাও বিবৃতিতে উল্লেখ করেন বিরোধী নেতা।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.