মশালটা এগিয়ে ধরো

0

কাকলী চৌধুরী:

তোমরা যখন শাহবাগ কাঁপাচ্ছো প্ল্যাকার্ড হাতে,
বজ্রকণ্ঠ শ্লোগান মুখে, ঊর্ধ্বমুখী মুষ্ঠিবদ্ধ হাতে,
ধর্ষণ, হত্যা, নির্যাতনের বিচার চেয়ে,
তনুর জন্য, তানিয়ার জন্য, পূজা, তাসফিয়া, রাফি, —-
আরো, আরো, আরো, আরো অনেক
অযুত নাম-না-জানা কিংবা সযতনে নাম-মুছে-দেয়া
অগুণতি স্বগোত্রীয়ের জন্য, মরিয়া হয়ে চিৎকার করছো
ঘিনঘিনে শুয়োর কিংবা কিলবিলে কীটেদের ফাঁসির দাবিতে,
শুয়োরের সাথে বসবাসের ফতোয়া অস্বীকারের
দেয়ালে-পিঠ-ঠেকে-যাওয়া-মরিয়া-মানুষ কিংবা
প্রাণভয়ে-পলায়নরত- কুকুরের মত জিভ-বের-করা প্রচেষ্টায়,
আমি তখন ঠাণ্ডা ঘরের ফিনফিনে বাতাসে আয়েশ করে শুয়ে বসে
ফেসবুক মাতাচ্ছি প্রেমের কাব্য লিখে, বিরহের নৈবেদ্য সাজিয়ে
সানুনয়ে মান ভাঙানোর চেষ্টা করছি কোন প্রবঞ্চক প্রেমের।

কী নির্মম, কী নিস্পৃহ আমি! তাই তো ভাবছো!
হয়তো ভাবছো, আমি ও এক বারোয়ারী বারোদুয়ারী ফেসবুক বিপ্লবী,
বড় বড় বুলি ছাড়ি, কাজের বেলায় অষ্টরম্ভা!
ভাবতেই পারো, রাগ করবো না এতটুকুও।

কী জানো তো,
আমি সত্যিই দিনদিন নিস্পৃহতার চাদরে ঢেকে নিচ্ছি নিজেকে,
দরজা জানালা বন্ধ ঘরে গড়ে তোলার চেষ্টা করছি প্রজন্মকে,
রাখবো না এদেশে, সঁপে দেবো বিশ্বমায়ের আঁচলে
যদি একটু কোথাও ঠাঁই পায় এতটুকু নিরাপদে শ্বাস নেবার!!!
আমি মেনে নিয়েছি সমাজে যখন শুয়োরদের বাম্পার ফলন হয়
আর পাহারাদার রাজামশাই প্রজাপালনের চেয়ে
শুয়োর সেবায় অধিকব্রতী, তখন
যত চেষ্টাই কর না কেনো, খাদের কিনার থেকে ফিরাতে পারবে না,
বাঁচাতে পারবে না তোমার আমার প্রিয়তম মাতৃমৃত্তিকাকে।।

আগাছায় ছেয়ে গেছে প্রিয়তম নন্দন কানন, বাতাসে লাশের গন্ধ,
বাতাসে বিষের গন্ধ, আতর লোবানে মিশে গেছে
পঁচা রক্তের ঝাঁজালো সুবাস, আমার নাক জ্বলে যায়,
আমার বুক জ্বলে যায়, আমার ঘুম চলে যায়,
উচ্চরক্তচাপে ঘুমের ওষুধ ও হার মেনে যায়
আমি বিষন্ন হই, আমি বিপন্ন হই, আমি ও পথ হারিয়ে ফেলি,
অন্ধ গোলোকধাঁধায়, ঘুরে মরি অমানুষের জঙ্গলে,
তারপর চুড়ান্ত হতাশায় মেনে নিই ভবিতব্য
মেনে নিই ফেরার পথ বহু আগেই ভেসে গেছে বেনো জলে
এখন শুধুই বাঁচার জন্য বেঁচে থাকা
থকথকে কাদায় নাক ডুবিয়ে বরাহজীবন।।

বলি শোনো, এ মাটির আর বাঁচার উপায় নেই তো কোনো
যদি সত্যিই চাও বাঁচুক দেশ, তবে সরে যাও, ছেড়ে দাও,
শুয়োরের দল আগে নিজের পশ্চাৎদেশ নিজেই কামড়ে ছিঁড়ুক
নিজের আগুনে নিজেই পুড়ে মরুক।
জানোই তো ফসলের চেয়ে আগাছা বেশি হয়ে গেলে কৃষকেরা
পরবর্তী সুন্দর ফসলের আশায় পুরো ক্ষেত জ্বালিয়ে দেয়।
চলো, তোমরাও শিকড়ে ফেরো
আগাছা পোড়ানোর মশালটা এবার আরেকটু এগিয়ে ধরো।

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

লেখাটি ১০২ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.